১৪ জুন ২০২৪, শুক্রবার, ০৩:৪৬:৫৪ অপরাহ্ন


পরকীয়ার সন্দেহে জামাইয়ের সারা শরীরে পেরেক ঢুকিয়ে হত্যা করলো স্ত্রী ও শাশুড়ি !
সুমাইয়া তাবাস্সুম:
  • আপডেট করা হয়েছে : ২৫-০৫-২০২৪
পরকীয়ার সন্দেহে জামাইয়ের সারা শরীরে পেরেক ঢুকিয়ে হত্যা করলো স্ত্রী ও শাশুড়ি ! পরকীয়ার সন্দেহে জামাইয়ের সারা শরীরে পেরেক ঢুকিয়ে হত্যা করলো স্ত্রী ও শাশুড়ি !


পরকীয়া সন্দেহে যুবকের সারা গায়ে পেরেক ফুটিয়ে দেহ গাছে ঝুলিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে স্ত্রী ও শাশুড়ির বিরুদ্ধে। মুর্শিদাবাদের ডোমকলের মুরারিপুর বণিকপাড়ায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় যুবকের স্ত্রী ও শ্বশুরবাড়ির সদস্যরা পলাতক রয়েছে। 

জানা গেছে, ওই ব্যক্তি ডোমকলের উত্তর গরিবপুরের বাসিন্দা। তার শ্বশুরবাড়ি মুরারিপুরে। স্থানীয় সূত্রের জানা গেছে, তিন বছর আগে দেখাশোনা করেই তাদের বিয়ে হয়েছিল। সম্প্রতি তাদের এক কন্যাসন্তানও হয়েছে। তার বয়স ১১ মাস। তবে এরই মধ্যে স্ত্রী ও শাশুড়ির সন্দেহ হয় যে তাঁর বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্ক রয়েছে। এ নিয়ে ঝামেলা লেগেই থাকত। 

সমস্যার সমাধানে কিছুদিন আগে গ্রামে একটি সালিশি সভার আয়োজন করা হয়। সেখানে ঠিক হয়, আপাতত স্ত্রী বাবার বাড়িতে চলে যাবে। সমস্যার সমাধান হলে তবে তিনি শ্বশুর বাড়িতে ফিরবে। সেই মতোই বেশ কয়েকদিন আগে বাবারবাড়ি চলে গিয়েছিল মৌসুমী। তবে তার ক্ষোভ কমেনি।

জানা যায়, এরপর বুধবার রাতে ওই ব্যক্তিকে ফোন তার শ্বশুর বাড়িতে ডাকা হয়। সেই মতোই শ্বশুর বাড়ি চলে যান। এর পরের দিন শ্বশুর বাড়ির কাছে একটি কাঁঠাল গাছ থেকে তাঁর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়। নিহতের পরিবারের দাবি, সারা শরীরে পেরেকের আঘাতের চিহ্ন ছিল। তাঁদের অভিযোগ, সারা শরীরে পেরেক ফুটিয়ে নির্যাতনের পর তাঁকে খুন করা হয়েছে।