৩০ মে ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ১২:৫৬:১০ পূর্বাহ্ন


স্মার্ট দেশ গড়তে হলে স্মার্ট নাগরিক গড়ে তুলতে হবে - পলক
সৌরভ সোহরাব, সিংড়া (নাটোর) প্রতিনিধি
  • আপডেট করা হয়েছে : ২৪-০৫-২০২৩
স্মার্ট দেশ গড়তে হলে স্মার্ট নাগরিক গড়ে তুলতে  হবে - পলক স্মার্ট দেশ গড়তে হলে স্মার্ট নাগরিক গড়ে তুলতে হবে - পলক


তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এমপি বলেছেন, আজকের শিক্ষার্থীরাই আগামীর স্মার্ট বাংলাদেশের নেতৃত্ব দেবে। স্মার্ট দেশ গড়তে হলে স্মার্ট নাগরিক গড়ে তুলতে হবে।

বুধবার (২৪ মে) দুপুরে সিংড়া উপজেলা হলরুমে বিপিও সামিট বাংলাদেশ ২০২৩ বিভাগীয় উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী পলক আরও বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশের আরকিটেক মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সুযোগ্য আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্ট্রা সজিব ওয়াজেদ জয় ভাই পরিকল্পনা নিয়ে ২০১০ সালে আইসিটি বিষয়টিকে ৬ষ্ঠ শ্রেণি থেকে দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত বাধ্যতামূলক করেছেন। আমাদের ছেলে-মেয়েদের অবশ্যই কম্পিউটার শিক্ষায় পড়াতে হবে। সামনে ১ লাখ ৯ হাজার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ইন্টারনেটের আওতায় আনা হবে। সেখানে আইটি টেনিংসহ বিভিন্ন প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।  সেজন্য আমাদের দেশপ্রেম, সততা, নিষ্ঠাবান হতে হবে। আমাদের ছেলে-মেয়েদেরকে সেই স্মাট নাগরিক হিসেবে তৈরি করতে হবে।

প্রতিমন্ত্রী পলক বলেন, দেশে ৫০ লাখ ছেলে-মেয়েদের আধুনিক কম্পিউটার শিক্ষায় সুশিক্ষিত করে দক্ষ জনশক্তিতে গড়ে তোলা হবে।  আমাদের কর্মক্ষম তরুণ-তরুণীর ক্ষমতা বেশি। আমরা যদি তাদের দক্ষকর্মী হিসেবে গড়ে তুলতে পারি, তাহলে তারা বিদেশে গিয়ে কাজ করতে পারবে। এছাড়াও দেশে প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে নিজেকে দক্ষভাবে গড়ে তুলে বাড়িতে বসে অনলাইনে কাজ করে টাকা ইনকাম করতে পারবে। দেশের অগ্রযাত্রায় ব্যাপক ভূমিকা পালন করবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন,  সিংড়ার ৮৫ হাজার ছেলে-মেয়েকে যদি দক্ষ জনশক্তি হিসেবে গড়ে তুলতে পারি। তাহলে আমাদের এখানে শেখ কামাল আইটি পার্ক, টেকনিক্যাল টেনিং সেন্টার, টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজে ২০ হাজার ছেলে-মেয়ে টেনিং নেবে। বাংলাদেশে ৬৪ হাজার প্রাইমারি স্কুল, ৩৫ হাজার হাই স্কুল, ১৫০টি বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের আওতায় ২২০০ কলেজ, মাদরাসায় প্রায় ৫০ লাখ সব মিলে ৫ কোটি ছাত্র-ছাত্রী কাজ করছে। বিশ্বের খুব কম দেশ রয়েছে যে দেশের জনসংখ্যা ৫ কোটি। আর আমাদের কর্মক্ষম ছেলে-মেয়ে ৫ কোটি রয়েছে। 

নাটোরের জেলা প্রশাসক আবু নাছের ভূঞাঁর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ফাউন্ডার ও মেন্টর নিজের বলার মতো একটা গল্প ফাউন্ডেশন'র প্রেসিডেন্ট ইকবাল বাহার জাহিদ, বাংলাদেশ আইসিটি জার্নালিস্ট ফোরামের (বিআইজেএফ) নাজনীন নাহার, ই-ক্যাবের সভাপতি শমী কায়সার, জেলা পুলিশ সুপার মো. সাইফুর রহমান, সিংড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাহমুদা খাতুন প্রমুখ।