২৫ Jul ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ০৯:২৪:১৪ পূর্বাহ্ন


ঘরে আগুন দিয়ে তিন জনকে খুন! গ্রেফতার মেজো বৌ ও তার প্রেমিক
সুমাইয়া তাবাস্সুম:
  • আপডেট করা হয়েছে : ০৭-০৭-২০২৪
ঘরে আগুন দিয়ে তিন জনকে খুন! গ্রেফতার মেজো বৌ ও তার প্রেমিক ঘরে আগুন দিয়ে তিন জনকে খুন! গ্রেফতার মেজো বৌ ও তার প্রেমিক


বাড়িতে আগুন ধরিয়ে একই পরিবারের তিন সদস্যকে পুড়িয়ে মারার ঘটনায় বাড়ির মেজো বৌ ও তার প্রেমিককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।  রবিবার বীরভূমের বোলপুরে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতদের আদালতে তোলা হয়েছে। সেই সাথে প্রেমিককে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

গত ৫ জুলাই রাতে খাওয়াদাওয়ার পর বাড়িতে ঘুমোচ্ছিলেন বোলপুর থানার রায়পুর সুপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের গীত গ্রামের বাসিন্দা শেখ তুতা, স্ত্রী রূপা বিবি এবং তাঁদের দুই সন্তান আয়ান শেখ ও শেখ রাখ। শেখ তুতা, রূপা, চার বছরের ছেলের সঙ্গে একই ঘরে ঘুমিয়ে ছিলেন। ওই ঘরের জানালা খোলা ছিল। সেখান দিয়ে কেরোসিন ছড়িয়ে আগুন ধরিয়ে দিয়ে কে বা কারা পালিয়ে যায়। আগুনে পুড়ে যায় গোটা বাড়ি। অগ্নিদগ্ধ হয়ে প্রথমে মারা যান রূপা এবং তাঁর সন্তান। শনিবার বর্ধমানের একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তুতা। 

একই পরিবারের তিন সদস্যের অস্বাভাবিক মৃত্যুর নেপথ্যে পারিবারিক কোনও অশান্তি ছিল কি না, খোঁজ নেয় পুলিশ। সেখান থেকে পাওয়া যায় পরকীয়ার ‘তথ্য।

পুলিশ সূত্রে খবর, ওই বাড়ির মেজো বৌ স্মৃতি বিবির সঙ্গে বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্ক রয়েছে এলাকার হাতুড়ে ডাক্তার চন্দন ইসলামের। অগ্নিকাণ্ডের পর চন্দনের কোনও খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। তবে স্মৃতিকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে তারা। সেখানে তিনি ষড়যন্ত্রের কথা স্বীকার করেছেন। পরে মেজো বৌকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পাশাপাশি চন্দনেরও খোঁজ মিলেছে। তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে ।

পুলিশ জানিয়েছে, রবিবার বোলপুর মহকুমা আদালতে তোলা হয় প্রেমিককে। তাঁকে পুলিশি হেফাজতে নেওয়ার আবেদন জানানো হয়। স্মৃতি ওই নৃশংস ঘটনার দায় স্বীকার করেছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক পুলিশ আধিকারি বলেন, রবিবার গ্রেফতারকৃত প্রেমিককে বোলপুর মহকুমা আদালতে তোলা হলে পুলিশের পক্ষ থেকে তাঁকে সাত দিনের জন্য হেফাজতে চাওয়া হয়। বিচারক সেই আবেদন মঞ্জুর করেছেন।’’

এই হত্যাকাণ্ডের তদন্তে বোলপুরের গ্রামে যায় ফরেন্সিক দল। আগুনে পোড়া ঘর থেকে বেশ কিছু নমুনা সংগ্রহ করেছে তারা।