১৬ এপ্রিল ২০২৪, মঙ্গলবার, ০১:৪৬:৫৬ পূর্বাহ্ন


সতর্ক থাকুন প্যারট ফিভার থেকে
ফারহানা জেরিন
  • আপডেট করা হয়েছে : ০১-০৪-২০২৪
সতর্ক থাকুন প্যারট ফিভার থেকে প্রতিকী ছবি


করোনার ভয় মানুষের মন থেকে দূর হতে না হতেই দেখা দিতে শুরু করেছে আরও একটি ভয়ঙ্কর রোগের নাম।এই রোগের নাম'প্যারট ফিভার'।করোনা ভালো না হতেই এই রোগের অনেক ঘটনা সামনে এসেছে।এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে,এই রোগে এ পর্যন্ত পাঁচজন প্রাণ হারিয়েছেন।জেনে নিন এই জ্বর কী,এর লক্ষণ ও প্রতিরোধ কী।

প্যারট ফিভার নামক একটি রোগ ইউরোপে খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে।বলা হচ্ছে ৯০ জনের বেশি মানুষ এই রোগে আক্রান্ত হয়েছে।WHO-ও এ বিষয়ে সতর্কতা জারি করেছে।

প্যারট ফিভার কী?

এই রোগটি সিটাকোসিস নামেও পরিচিত।এটি একটি সম্ভাব্য গুরুতর ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণ যা ক্ল্যামাইডিয়া সিটাসি নামক ব্যাকটেরিয়া দ্বারা সৃষ্ট।এই সংক্রমণ প্রধানত পাখি,বিশেষ করে টিয়া,কবুতর এবং মুরগিকে প্রভাবিত করে।সংক্রমিত পাখির সংস্পর্শে আসার কারণে মানুষেরও সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।এই ব্যাকটেরিয়া থেকে মানুষের নিউমোনিয়া হতে পারে।এই ব্যাকটেরিয়া দ্বারা আক্রান্ত টিয়াপাখির শ্বাস,মল এবং পালকের মাধ্যমে এই সংক্রমণ ছড়াতে পারে।যারা টিয়াপাখি পালন করেন,মুরগির খামার করেন বা পাখির চিকিত্‍সক তাদের এই রোগের ঝুঁকি বেশি।

WHO- র মতে,২০২৩ সালের শুরু থেকে মানুষ এই রোগে আক্রান্ত হতে শুরু করলেও এখন মানুষও এর কারণে প্রাণ হারাতে শুরু করেছে।

লক্ষণ -

জ্বর।

মাথাব্যথা।

শরীর ঠাণ্ডা হয়ে যাওয়া।

পেশী ব্যথা।

কাশি।

শ্বাস নিতে সমস্যা।

বমি,পেট ব্যথা বা পেট খারাপ।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে,এই জ্বরের লক্ষণগুলি সাধারণত হালকা হতে পারে এবং সংক্রমণের ১৪ থেকে ১৫ দিন পরে দেখা যায়।যখন এই ধরনের লক্ষণ দেখা যায়,তখন WHO পরামর্শ দিয়েছে যে অবিলম্বে পরীক্ষা করানো এবং এটিকে সাধারণ জ্বর হিসাবে বিবেচনা না করা।কারণ এই ক্ষেত্রে রোগীর নিউমোনিয়াও হতে পারে।

অনেকের মনে প্রশ্ন জাগে,আমিষ খেলেও কি এই রোগ ছড়াতে পারে?এমন পরিস্থিতিতে চিকিত্‍সকরা বলছেন, খাবারের মাধ্যমে এই রোগ ছড়াতে পারে না,তবে সতর্ক থাকতে হবে।

কিভাবে এই জ্বর এড়াবেন -

আপনি যদি বাড়িতে পাখি রাখার কথা ভাবছেন তবে এটি এড়িয়ে চলুন।

বাড়িতে আগে থেকেই পাখি থাকলে তাদের থেকে দূরে থাকুন। তাদের খাঁচায় রাখুন এবং সময়ে সময়ে খাঁচা পরিষ্কার করতে থাকুন,যাতে তাদের মল সেখানে জমতে না পারে।

খাঁচা পরিষ্কার এবং পাখি পরিচালনা করার সময় গ্লাভস এবং মাস্ক পরুন।

অনেক পাখি আছে এমন জায়গায় কাজ করলে সতর্ক থাকুন।