০৫ মার্চ ২০২৪, মঙ্গলবার, ০৩:১৯:৫৩ পূর্বাহ্ন


স্ত্রীর কান ছিঁড়ে নেওয়ার অভিযোগে স্বামী গ্রেফতার
সুমাইয়া তাবাস্সুম:
  • আপডেট করা হয়েছে : ০৩-১২-২০২৩
স্ত্রীর কান ছিঁড়ে নেওয়ার অভিযোগে স্বামী গ্রেফতার স্ত্রীর কান ছিঁড়ে নেওয়ার অভিযোগে স্বামী গ্রেফতার


স্ত্রীর সঙ্গে অশান্তি’র ধারবাহিকতায় মারধর করে স্ত্রীর কান ছিঁড়ে দিয়েছিলেন স্বামী শেখ রফিকুল।  শুধু তাই নয় গলায় গামছা পেচিয়ে ফাঁস দিয়ে মেরে ফেলার চেষ্টাও করেন তিনি। এরপরই যুবককে গ্রেফতার করিয়ে স্ত্রীকে বাপের বাড়িতে পাঠিয়ে দেন প্রতিবেশীরা। কিন্তু থানা থেকে ছাড়া পেয়ে শ্বশুরবাড়িতে গিয়ে আগুন লাগিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে সেই যুবকের বিরুদ্ধে। মালদহের মাণিকচক ব্লকের চৌকি মিরদাদপুর অঞ্চলের করিটোলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে

জানা গেছে, স্ত্রী রিনা খাতুনের কানে এখনও ব্যান্ডেজ করা। তারমধ্যেই ফের থানা থেকে ছাড়া পেয়েছে স্বামী। এরপর বাড়ি না এসে সোজা তিনি চলে যান শ্বশুরবাড়ি। সেখানে গিয়েই আগুন লাগিয়ে দেন বাড়িতে। মুহূর্তের মধ্যে গোটা বাড়ি পুড়ে ছাই হয়ে যায়। জানা গেছে, ১১ বছর আগে বিয়ে হয়েছিল দু’জনের। দু’টি সন্তানও রয়েছে। প্রতিবেশীদের দাবি, শ্বশুরবাড়ির সঙ্গে বিবাদের কারণেই রফিকুল স্ত্রীর উপর অত্যাচার শুরু করে। কয়েক দিন আগে মারধর করে কানও ছিঁড়ে দেয়।

এ বিষয়ে রিনা খাতুন সংবাদমাধ্যমে বলেন, “আমার স্বামী রোজ মদ খায়। এরপর বাড়ি ফিরে আমায় মারতে শুরু করে। গত বৃহস্পতিবার রাতে আমার কান টেনে ছিঁড়ে দেয়। এমনকী গলার গামছা দিয়ে ফাঁস লাগাতে চেষ্টা করে। আমার চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন এসে আমায় বাঁচায়। তখনই বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। এরপর সে  থানা থেকে ছাড়া পেয়ে চুপিসারে বাড়ির পিছন দিক দিয়ে ভিতরে ঢুকে আগুন লাগিয়ে দেয়। আমরা কোনওরকমে বেঁচে গেছি। ঘটনার পরই মানিকচক থানায় গিয়ে অভিযোগ দায়ের করেছি।” জামাইয়ের শাস্তি দাবি করছেন শ্বশুরবাড়ির  লোকজন।