২৫ Jul ২০২৪, বৃহস্পতিবার, ০৯:১৪:৫৮ পূর্বাহ্ন


প্রকাশিত প্রতিবাদের প্রতিবাদ
নিজস্ব প্রতিবেদক :
  • আপডেট করা হয়েছে : ১২-১১-২০২৩
প্রকাশিত প্রতিবাদের প্রতিবাদ প্রকাশিত প্রতিবাদের প্রতিবাদ


গত ইং ১২/১১/২০২৩ তারিখে দৈনিক বার্তা প্রত্রিকায় একটি প্রতিবাদ আমার দৃষ্টি গোচর হয়েছে। সেই প্রতিবাদে রাজশাহী রাণীনগর নৈশ উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক মোসা: আনোয়ারা খাতুন নিজের দোষ এবং কাব্যতীর্থ্যরে শিক্ষকের অপরাধ ঢাকতে মিথ্যার আশ্রয় নিয়েছে। তিনি বলেছেন, দৈনিক বার্তা-সহ কিছু অনলাইন নিউজ পোর্টালে প্রকাশিত রাজশাহী নৈশ উচ্চ বিদ্যালয় অনিয়ম তদন্তে জেলা শিক্ষা অফিসারের বিরুদ্ধে প্রভাবিত হওয়ার অভিযোগ শিরোনামে যে খবর প্রকাশিত হয়েছে এবং যেখানে মুসলমান শিক্ষার্থীদের হিন্দু বলে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয় বলে সংবাদ প্রচার করা হয়েছে। প্রকাশিত খবরটি মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন একটি মহল, একটি চক্র, দেশ ও জাতির মধ্যে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করে, দেশের মধ্যে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা বাঁধানোর চেষ্টা করছে।

আমি মোঃ ইব্রাহীম হোসেন সম্রাট আনোয়ারা খাতুনের তিব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

তার এই রকম বাড়াবাড়ি ভাবনা আমাকে বিব্রত করেছে। সাংবাদিকরা যে সংবাদ প্রকাশ করেছে তার প্রকৃত অর্থ না বুঝে ভিন্ন খাতে নিয়ে যাওয়ার অপচেষ্টা করছেন তিনি। রাণীনগর নৈশ উচ্চ বিদ্যালয় একটি বিশেষায়িত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। তাহা নতুন করে বোঝানোর কিছু নাই। এটা পুরো এলাকার মানষের জানা। মুসলিম ছেলে মেয়েদের হিন্দু পরিচয় দেয়া এবং হিন্দু শিক্ষা দেওয়ার বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের (ডিডি ম্যাডামের) নিকট আবেদন করেছি। যাতে এই শিক্ষককে বহিস্কার করা হয়। তাছাড়া স্কুলে হিন্দু ছাত্র-ছাত্রী নাই, তাহলে সরকারী অর্থ অপচয় করে কি লাভ। অথচ তিনি ধর্মীয় অনুভূতি আর সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা বাঁধানোর চেষ্টার কথা উল্লেখ করেছেন। আমার মনে হয় ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের সার্টিফিকেটে সমস্যা আছে। মানে প্রথম বিভাগে পাশের কোন সার্টিফিকেট নাই। তাই তার প্রধান শিক্ষক হওয়ার মতো যোগ্যতা নাই। তাছাড়া মুসলিম শিক্ষার্থীদের হিন্দু ধর্ম শিক্ষার দেয়ার বিষয়টি আমার কাছে ভিডিও রয়েছে। জেলা শিক্ষা অফিসার প্রভাবিত হওয়ার যথেষ্ট যৌক্তিক উদাহরণ রয়েছে।

আরও পড়ুন: অনিয়মের প্রশ্ন করতেই ক্ষেপে গেলেন প্রধান শিক্ষিকা!
আরও পড়ুন: মুসলিম ছাত্র-ছাত্রীদের হিন্দু ধর্ম শিক্ষা দিয়ে পরিদর্শকের সাথে হিন্দু বলে পরিচয় দিলেন শিক্ষিকা
আরও পড়ুন: রাজশাহীর নৈশ্য উচ্চ বিদ্যালয়ের অনিয়ম তদন্তে জেলা শিক্ষা অফিসারের বিরুদ্ধে প্রভাবিত হওয়ার অভিযোগ