০৫ মার্চ ২০২৪, মঙ্গলবার, ০৩:৫৭:২৪ পূর্বাহ্ন


আরএমপিতে শুরু হলো "বিট পুলিশিং পক্ষ" উদযাপন
মাসুদ রানা রাব্বানী
  • আপডেট করা হয়েছে : ১২-০২-২০২৪
আরএমপিতে শুরু হলো "বিট পুলিশিং পক্ষ" উদযাপন আরএমপিতে শুরু হলো "বিট পুলিশিং পক্ষ" উদযাপন


আরএমপি’র সেবা জনগণের নিকট পৌঁছে দিতে এবং পুলিশের সাথে জনগণের সম্পৃক্ততা বৃদ্ধির লক্ষ্যে আরএমপিতে শুরু হলো "বিট পুলিশিং পক্ষ" উদযাপন।

আরএমপি’র কমিশনার বিপ্লব বিজয় তালুকদারের দিকনির্দেশনায় সোমবার (১২ ফেব্রুয়ারি) থেকে আরএমপি’র ১২ টি থানায় ৭৮ টি বিটে একযোগে বিট পুলিশিং সেবা জনগণের নিকট পৌঁছে দিতে  ও সেবার কার্যক্রমকে গতিশীল এবং কার্যকর করতে "বিট পুলিশিং পক্ষ" উদযাপন করছে আরএমপি।

পুলিশ কমিশনার বলেন, বিট পুলিশিং পক্ষ উদযাপন উপলক্ষ্যে প্রত্যেক বিট অফিসাররা তাদের নিজ নিজ বিট এলাকায় উঠান বৈঠকের মাধ্যমে সামাজিক অপরাধ সম্পর্কে মানুষকে সচেতন করবে এবং মাদক, জুয়ার বিরুদ্ধে পুলিশের জিরো টলারেন্স নীতি সম্পর্কে জনসচেতনতা সৃষ্টি করবে। পাশাপাশি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে শিক্ষক, অভিভাবক, শিক্ষার্থী ও সুশীল সমাজের ব্যক্তিবর্গদের নিয়ে ইভটিজিং, মাদক ও উগ্রবাদের কুফল নিয়ে মতবিনিময় সভা করবে।

আরএমপি’র ১২ থানায় ৭৮ টি বিট রয়েছে। প্রতি বিটের নেতৃত্বে আছেন একজন উপ-পরিদর্শক। তাঁর সঙ্গে একজন সহকারী উপ-পরিদর্শক আরও দুই থেকে তিনজন কনস্টেবল কাজ করেন। তাঁরা নিজ এলাকার যাবতীয় তথ্য সংগ্রহ (হালনাগাদ) করেন।

পুলিশকে কিভাবে অধিকতর জনমুখী এবং জনবান্ধব হিসেবে গড়ে তোলা যায়, পুলিশের কার্যক্রম কীভাবে আরও গতিশীল করা যায় তারই একটি সমন্বিত প্রয়াস হলো বিট পুলিশিং কার্যক্রম। সেবা নিতে জনগণকে আর পুলিশের কাছে যেতে হবে না, বরং পুলিশই জনগণের কাছে পৌঁছে যাবে সেবা নিয়ে- বিট পুলিশিংয়ের সূচনা হয় এই মূলমন্ত্রকে ধারণ করে।