০৫ অক্টোবর ২০২২, বুধবার, ০৬:২০:৫৬ পূর্বাহ্ন


জাতির পিতার সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা
অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট করা হয়েছে : ১২-০৮-২০২২
জাতির পিতার সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ফাইল ফটো


গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

শুক্রবার (১২ আগস্ট) সকাল পৌনে ১১টায় শ্রদ্ধা জানানো শেষে ফাতেহা পাঠ ও বিশেষ মোনাজাত করেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর গাড়িবহর সকাল ১০টা ৪৩ মিনিটে টুঙ্গিপাড়ায় পৌঁছায়।

এর আগে সকালে রাজধানীর গণভবন থেকে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় পৈতৃক বাড়ির উদ্দেশে রওনা হন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর গাড়িবহর সকাল ৮টা ১২ মিনিটে মাওয়া প্রান্ত দিয়ে পদ্মা সেতুতে ওঠে।

মাওয়া টোল প্লাজায় ৬ নম্বর লেন দিয়ে প্রবেশ করে গাড়ি বহরের জন্য ২৫ হাজার ৭৫০ টাকা টোল পরিশোধ করেন শেখ হাসিনা।

সেতু অতিক্রমের সময় প্রধানমন্ত্রী সেতুর মাঝামাঝি স্থানে গাড়ি থেকে নামেন। ছোট বোন শেখ রেহানাসহ ৫ মিনিট সেতুতে অবস্থান করে আবার গাড়িতে ওঠেন। এরপর রওনা দেন টুঙ্গিপাড়ায় বাবার সমাধিস্থলে।

এদিকে প্রধানমন্ত্রীর গোপালগঞ্জ সফরকে কেন্দ্র করে টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধি ও আশপাশের এলাকায় নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে।

এর আগে গত ২৫ জুন দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২১ জেলার স্বপ্নের পদ্মা সেতু উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেদিন নিজে টোল দিয়ে সেতু পাড়ি দিয়েছিলেন তিনি। উদ্বোধনের পর গত ৪ জুলাই পদ্মা সেতু পাড়ি দিয়ে টুঙ্গিপাড়া সফর করেন তিনি। সফরে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন তার দুই সন্তান সজীব ওয়াজেদ জয় ও মেয়ে সায়মা ওয়াজেদ পতুল।

ওই দিন সকাল ৮টায় গণভবন থেকে সড়ক পথে টুঙ্গিপাড়ার উদ্দেশে রওনা হন প্রধানমন্ত্রী। পরে পৌনে ৯টার দিকে মাওয়া টোল প্লাজায় টোল দিয়ে পদ্মা সেতুতে ওঠেন তিনি।

মূল সেতুতে উঠার পর প্রধানমন্ত্রীর যাত্রাসঙ্গী হিসেবে থাকা তার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয় এবং মেয়ে সায়মা ওয়াজেদ পুতুলকে নিয়ে কিছু সময়ের জন্য গাড়ি থেকে নামেন তিনি এবং একটি ছবিও তোলেন। এরপর সেতু পার হয়ে জাজিরা প্রান্তেও থেমে কিছু সময় অতিবাহিত করে প্রধানমন্ত্রীর গাড়িবহর। এ সময় পরিবারের অন্য সদস্যরাও সেখানে ছিলেন।

পরে মাত্র সাড়ে ৩ ঘণ্টার সফর শেষে টুঙ্গিপাড়া পৌঁছান তিনি। ওই দিন রাতেই আবার পদ্মা সেতু পাড়ি দিয়ে ঢাকায় ফিরে আসেন প্রধানমন্ত্রী।