২৯ জানুয়ারী ২০২৩, রবিবার, ১০:৪৮:১১ অপরাহ্ন


এমবাপ্পের ৫ গোলে শেষ ষোলোতে পিএসজি
ক্রীড়া ডেস্ক:
  • আপডেট করা হয়েছে : ২৪-০১-২০২৩
এমবাপ্পের ৫ গোলে শেষ ষোলোতে পিএসজি ফাইল ফটো


খেলার দশম মিনিটে বল জালে জড়ালেন কিলিয়ান এমবাপ্পে, অফসাইডের গেরোতে বাতিল হল সেই গোল। এরপর যেন তেতে উঠলেন। চল্লিশ মিনিটের মাঝে পূরণ করলেন হ্যাটট্রিক। ফ্রেঞ্চ স্ট্রাইকার পরে আনলেন আরও দুই গোল। সতীর্থদের কল্যাণে আসল আরও দুই। কুপ দে ফ্রান্সে পি দে কেসেলকে নিয়ে ছেলেখেলায় মেতে ৭ গোলের বড় জয়ও তুলল পিএসজি।

লঁসের স্তাদে বোলার্ট-ডেলিলিসে সেরা বত্রিশের ম্যাচে প্রথমবারের মত পিএসজির আর্মব্যান্ড পরে নামেন এমবাপে৷ লিওনেল মেসিকে খেলাননি কোচ ক্রিস্তফ গালতিয়ের, তবে শক্ত দল নামিয়েছেন। ফরাসি ফুটবলের ষষ্ঠ সারির ক্লাবের বিপক্ষে বিশ্বকাপজয়ীর ঘাটতিও বুঝতে দেননি এমবাপে-নেইমাররা।

ফরাসি কাপের গত আসরে পিএসজির যাত্রা থেমেছিল শেষ ষোলোতে, নিসের কাছে হেরে। চলতি মৌসুমে ট্রফি দে চ্যাম্পিয়নের শিরোপা তোলা প্যারিসের ক্লাবটি এবার হয়ত শিরোপা হাতছাড়া করতে চাইবে না। কোচ গালতিয়েরও যেন দৃঢ় প্রতিজ্ঞ, লিগ ওয়ানের চ্যাম্পিয়নরা এগোচ্ছেন ফেভারিট হিসেবেই। গত রাতের ম্যাচেও দেখিয়েছেন শক্ত-সামর্থ্যের ছাপ। প্রতিপক্ষের জালে ফ্রেঞ্চ জায়ান্টরা যেখানে ২১ বার শট নিয়ে ১৩ বার গোলমুখে রেখেছে, সেখানে প্রতিপক্ষের গোলেশট মোটে একবার। বল দখলে কিছুটা এগিয়ে থাকলেও বাকি সব বিভাগে ধুঁকেছে পি দে কেসেল।

অধিনায়কত্বের শুরু হ্যাটট্রিকে রাঙাবেন হয়ত ভাবতেও পারেননি এমবাপ্পে, অথবা আরও বড় কিছু ভেবে রেখেছিলেন। চোখেমুখে লেপ্টে থাকা উজ্জ্বল ভাব ফ্রেঞ্চ তারকার রাতের কথাই বলছিল। ৭-০ গোলে রাতে এমবাপের পাঁচ বাদে বাকি গোল দুটি করেন নেইমার ও কার্লোস সলের।

ম্যাচের প্রথম মিনিট থেকে আক্রমণে ওঠা পিএসজি নবম মিনিটে দেখে প্রথম গোল। তবে এমবাপে নিজে অফসাইড থাকায় বাতিল হয় গোলটি। অফসাইডের বাঁশিতে সেই যাত্রায় রক্ষা পেলেও পরে ভুগিয়েছেন ২৩ বর্ষী স্ট্রাইকার। গোল হতে অবশ্য খুব বেশি দেরি হয়নি। প্রথমার্ধেই চারবার জালে বল পাঠিয়ে জয়ের পথে এগিয়ে যায় পিএসজি। ২৯ ও ৩৪ মিনিটের পর চল্লিশ মিনিটে হ্যাটট্রিক পূরণ করেন এমবাপে।

এরআগে, ৩৩ মিনিটে দুর্দান্ত এক গোল করেন নেইমার৷ পুরো ম্যাচে বল পায়ে দাপট দেখানো ব্রাজিলিয়ান পাসিংয়ে দেখিয়েছেন মুন্সিয়ানা। এক গোলের পাশাপাশি সতীর্থদের করিয়েছেন দুটি। এমবাপের রাতে ৬৪ মিনিটে ব্যবধান ৬-০ করেন কার্লোস সলের। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে তিন থেকে চারে আসেন পিএসজির অধিনায়ক এমবাপ্পে। ৭৯ মিনিটে নিজের পাঁচ গোলের সঙ্গে সঙ্গে ঠুকে দেন বড় জয়ের সিল। শেষ ষোলোর প্রতিপক্ষ নিশ্চিত না হলেও সেখানে অলিম্পিক মার্শেইকে পেতে পারে লিগ ওয়ান চ্যাম্পিয়ন দল।