২৯ জানুয়ারী ২০২৩, রবিবার, ০৮:৫২:৩৯ অপরাহ্ন


স্ত্রীকে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ সেনা সদস্যের বিরুদ্ধে, ৯৯৯ ফোনে উদ্ধার
পুঠিয়া (রাজশাহী) প্রতিনিধি:
  • আপডেট করা হয়েছে : ০৬-১২-২০২২
স্ত্রীকে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ সেনা সদস্যের বিরুদ্ধে, ৯৯৯ ফোনে উদ্ধার স্ত্রীকে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ সেনা সদস্যের বিরুদ্ধে, ৯৯৯ ফোনে উদ্ধার


রাজশাহীর পুঠিয়ায় স্ত্রীকে মারধর ও হত্যার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে রনি ইসলাম নামের একজন সেনা সদস্যের বিরুদ্ধে। এ সময় স্থানীয় লোকজন ৯৯৯ ফোন করলে থানা পুলিশ ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

সোমবার (৫ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় উপজেলার ভালুকগাছি ইউনিয়নের নদাপাড়া গ্রামে স্বামীর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

নির্যাতনের শিকার ওই গৃহবধূর নাম মীম আকতার (২২)। তিনি জিউপাড়া ইউনিয়নের হাড়খালি গ্রামে আল ইসলামের মেয়ে।

ভুক্তভোগী মীম আকতার বলেন, প্রায় তিন বছর আগে তাদের বিয়ে হয়। আর বিয়ের আগে তাদের সাথে যৌতুকের কোনো চুক্তি ছিল না। তার পরও আমরা বাবা তাকে একটি হোন্ডা দিয়েছিল। কিন্তু সে নগদ ৪ লাখ টাকা দাবি করেন। আমার আব্বা সাধারণ কৃষক, তার চাহিদা মোতাবেক টাকা দিতে পারেনি। আর এই অযুহাতে যখনই ছুটিতে বাড়ি আসে তখনই সে আমাকে ব্যাপক মারধর করে। গতকালও সে আমার গলায় ওড়না পেচিয়ে মেরে ফেলতে চেয়েছিল। খবর পেয়ে পুলিশ আমাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেছেন।

ভুক্তভোগীর বাবা আল ইসলাম বলেন, মানুষ এতো লোভী আর নির্দয় হতে পারে তা আগে জানা ছিল না। মেয়ের সুখের জন্য আমার সাধ্যমত অনেক করেছি। এখন তো দেখছি জামাই মেয়েকে মারধর করে মেরেই ফেলবে। ওই গ্রামের লোকজন সময়মত পুলিশে খবর না দিলে হয়তো তাকে মেরেই ফেলতো। তিনি বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করবেন।

তবে সেনা সদস্য রনি ইসলাম বলেন, এ বিষয়ে আমি কিছুই বলবো না। আপনার কিছু জানার থাকলে থানা পুলিশের সাথে যোগাযোগ করেন। কারণ তারা এখানে এসেছিল। তারাই ভালো বলতে পারবেন, বলে ফোনের লাইন কেটে দেন।

এ ব্যাপারে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সোহরাওয়াদী হোসেন বলেন, স্বামী স্ত্রীর মধ্যে বিরোধের বিষয়ে ৯৯৯ এর মাধ্যমে গতকাল এক গৃহবধূকে উদ্ধার করা হয়েছে। তবে এখনো পর্যন্ত থানায় ওই ভুক্তভোগী বা তার পরিবার কোনো অভিযোগ দেননি। অভিযোগ আসলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।