ঢাকা মঙ্গলবার, জুলাই ৭, ২০২০
কথা দিলেও কাজে তা করেনি আগ্রাসী চীন
  • Rajshahir Somoy Desk
  • ২০২০-০৬-২৯ ১২:৪১:২৮
কথা দিলেও কাজে তা করেনি আগ্রাসী চীন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : লাদাখ সীমান্তে ভারত-চীন সংঘাতের পর পরিস্থিতি শান্ত করতে চীনকে বৈঠকের আহ্বান জানিয়েছিল ভারত। কিন্ত তাতে কোন সাড়া দেয়নি দেশটি। বরং সীমান্তের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় কাছেই ক্যাম্প করে ঘাঁটি গেড়ে বসেছে চীন। তাতে কিছুটা ক্ষিপ্ত হয়েছে ভারত। পাল্টা জবাব দিতে তারাও সীমান্তে বাড়িয়েছে সেনা সংখ্যা, পাঠিয়েছে যুদ্ধবিমান, এমন দাবি করেছে ভারতীয় কয়েকটি সংবাদ মাধ্যম। 

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম দাবি করছে, পরিস্থিতি শান্ত করতে বারবার চীনকে ভারত আহ্বান জানিয়েছে, কিন্ত এ নিয়ে বৈঠকে বসতেও রাজি ছিল চীন। কিন্ত ভারত এখন দাবি করছে, চীন কথা দিয়েও কথা রাখেনি। তাহলে কী চীন আসলেই খেপেছে ভারতের উপর?

ইতোমধ্যে সীমান্তের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় চীনা সেনাদের অবস্থান ধরা পড়েছে উপগ্রহ চিত্রে। উপগ্রহ মারফত গালওয়ান উপত্যকার যে ছবি প্রকাশ্যে এসেছে তাতে স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে লাল ফৌজের কালো ত্রিপলে মোড়া ক্যাম্প। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখা থেকে ৯ কিলোমিটারের মধ্যেই এখনও কম করে ১৬ টি ক্যাম্প রয়েছে চীনা সেনার।

২২ জুনের লেফটেন্যান্ট পর্যায়ের বৈঠকে দুই দেশই সেনা সরানোর পক্ষে কথা বলেছিল। কিন্তু কথা দিলেও কাজে তা করেনি আগ্রাসী চীন। যা উপগ্রহ চিত্র থেকে স্পষ্ট।

উপগ্রহ চিত্রে দেখা মেলেনি ভারতের কোনও ঘাঁটির। অর্থাৎ দুই দেশের সেনা কর্তাদের মধ্য বৈঠকের পর ভারত সেনা সরালেও সে পথে হাঁটেনি 'যুদ্ধবাজ' চীন। উপগ্রহ চিত্র অনুযায়ী, চীনা সেনা এখন যেখানে অবস্থান করছে সেখান থেকে দৌলতবেগ ওলদি হাইওয়ের দূরত্ব ৬ কিলোমিটার। এই হাইওয়ে নির্মাণই ভাবাচ্ছে বেজিংকে। কারণ এই হাইওয়ে নির্মাণ হয়ে গেলে সহজেই ভারতীয় জওয়ানরা আকসাই চীনের অভ্যন্তরে নজরদারি চালাতে পারবে। এবং এই হাইওয়ের সাহায্যে সহজেই ভারতের দৌলতবেগ বায়ুসেনা ঘাঁটির সঙ্গে যোগাযোগ সম্ভব হবে।

তবে চীন যে কথা দিয়ে কথা রাখছে না তা বুঝেই আগে থেকে লাদাখ সীমান্তে ভারত সামরিক বাহিনীকে শক্তিশালী করে তুলেছে। পৌঁছে গিয়েছে অত্যাধুনিক অস্ত্র।

রাজশাহীর সময় ডট কম –২৯ জুন ২০২০

বিয়ের দাবি প্রেমিকের বাড়িতে সপরিবারে মানববন্ধন, পালালো প্রেমিক
এগুলি সবচেয়ে উদ্ভট বিশ্ব রেকর্ড
আলিবাবা না থাকলেও গুপ্তধন এখনো আছে!