ঢাকা মঙ্গলবার, মে ১৮, ২০২১
এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের বেতন-বোনাস ছাড়
  • Rajshahir Somoy Desk
  • ২০২১-০৫-০৩ ১২:২৮:১৬
ফাইল ফটো

অনলাইন ডেস্ক: বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত এমপিওভুক্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের এপ্রিল মাসের বেতন ও ইদ বোনাস ছাড় দেওয়া হয়েছে।

রাষ্ট্রায়ত্ত চারটি ব্যাংক সোনালী, রূপালী, অগ্রণী ও জনতা ব্যাংকের মাধ্যমে গতকাল রবিবার (২ মে) ৮টি চেক ছাড় করা হয়। শিক্ষক-কর্মচারীদের আগামী ৮ মে এর মধ্যে বেতন-বোনাসের টাকা তুলতে হবে।

এ জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানদের ওয়েবসাইট (emis.gov.bd) থেকে নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের এমপিওর শিট ডাউনলোড করতে বলা হয়েছে।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) সাধারণ প্রশাসন শাখার উপ-পরিচালক মো. রুহুল মমিন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরাধীন বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহের শিক্ষক-কর্মচারীদের এপ্রিল মাসের বেতন-ভাতার সরকারি অংশের ৮টি চেক ছাড়া হয়েছে। অনুদান বণ্টনকারী অগ্রণী ও রূপালী ব্যাংক লিমিটেড, প্রধান কার্যালয়ে এবং জনতা ও সোনালী ব্যাংক লিমিটেড, স্থানীয় কার্যালয়ে এটি হস্তান্তর করা হয়েছে। আগামী ৮ মে পর্যন্ত সংশ্লিষ্ট শাখা ব্যাংক থেকে বেতন-ভাতা উত্তোলন করতে পারবেন।

এ দিকে, শিক্ষকদের বেতনের ২৫ শতাংশ আর কর্মচারীদের বেতনের ৫০ শতাংশ ইদ বোনাসে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন শিক্ষক নেতৃবৃন্দ।

বেসরকারি শিক্ষক সমিতির সভাপতির সভাপতি নজরুল ইসলাম রনি বলেন, একই প্রতিষ্ঠানে চাকরি করে কেউ ২৫ শতাংশ আর কেউ ৫০ শতাংশ ইদ বোনাস পাবে এটি একটি বৈষম্য। এ বৈষম্য নিরসনে ইতোমধ্যেই প্রধানমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রীকে নয় দফায় স্মারকলিপি দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা বেতনের শতভাগ বোনাস পাচ্ছেন, আর আমাদের মোট বেতনের ২৫ শতাংশ ইদ বোনাস দেওয়া হচ্ছে। একজন সহকারী শিক্ষক যা পাচ্ছেন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানকেও তাই দেওয়া হচ্ছে।

দ্রুত এ বৈষম্য নিরসনের দাবি জানিয়ে এই শিক্ষক নেতা বলেন, করোনা পরিস্থিতির মধ্যে শিক্ষকরা কষ্টের মধ্যে জীবনযাপন করছেন। বেতনের ২৫ শতাংশ বোনাস দিয়ে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ইদ উৎসব পালন করা সম্ভব নয়।

রাজশাহীর সময় / এফ কে

প্রশিক্ষণের টাকা পাচ্ছেন না প্রাথমিকের ২১ হাজার শিক্ষক
দৃষ্টান্ত স্থাপন করল রাজশাহীর অগ্রণী স্কুল ও কলেজ
প্রাথমিক-মাধ্যমিকের ৪৪ শতাংশ শিক্ষার্থী পড়াশোনার বাইরে