সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ০১:২৮ পূর্বাহ্ন

রাজশাহীতে কলেজ শিক্ষার্থী হত্যা মামলার প্রধান আসামী আটক: স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

রাজশাহীতে কলেজ শিক্ষার্থী হত্যা মামলার প্রধান আসামী আটক: স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি

মাসুদ রানা রাব্বানী : রাজশাহী সিটি কলেজের শিক্ষার্থী রাব্বী হত্যা মামলার প্রধান আসামী মোঃ রনক (২৩) নামের এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। আজ (১৭ আগস্ট) আসামী রনক বিজ্ঞ ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ সেলিম রেজা, এমএম-৫, রাজশাহীর আদালতে হত্যা ঘটনার বর্ণনা করে স্বেচ্ছায় ফৌঃ কাঃ বিঃ ১৬৪ ধারা মোতাবেক স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার(সদর), মোঃ গোলাম রুহুল কুদ্দুস বলেন, গত (৭ আগস্ট) নগরীর হেতেমখাঁ ছোট মসজিদের পার্শ্বে বর্নালী হলের পিছনে থেকে তাকে ৭.২ গ্রাম হেরোইনসহ আটক করা হয়।

আটককৃত মোঃ রনক বোয়ালিয়া, থানাধিন হেতেমখাঁ ছোট মসজিদ এলাকার মৃত কুদরত আলীর ছেলে।

সিটি কলেজ শিক্ষার্থী ফারদিন ইসনা আষাড়িয়া রাব্বী (১৯) হত্যা হত্যাকান্ডের ঘটনায় তদন্তকালে প্রাপ্ত তথ্য প্রমাণ ও প্রত্যক্ষদর্শী সাক্ষীর তথ্যের ভিত্তিতে গত (৮ আগস্ট) রনককে আটক করে হত্যা মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয় এ বং পুলিশ রিমান্ডের আবেদন করা হয়।

গত (১৪ আগস্ট) পুলিশ রিমান্ডে এনে ব্যাপক ও নিবিড়ভাবে জিজ্ঞাসাবাদে আসামী রনক উক্ত হত্যা মামলার ঘটনার সহিত সরাসরি জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে। প

রে দেয়া তথ্য ও সনাক্ত মতে তার বাসার শয়ন কক্ষ হতে হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত একটি ১৫ ইঞ্চি ধারালো দা (দাউলি) আলামত হিসেবে উদ্ধার করে হেফাজতে নেয়া হয়।

এরপর (১৭ আগস্ট) আসামী রনক বিজ্ঞ ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ সেলিম রেজা, এমএম-৫, রাজশাহীর আদালতে হত্যা ঘটনার বর্ণনা করে স্বেচ্ছায় ফৌঃ কাঃ বিঃ ১৬৪ ধারা মোতাবেক স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।

আসামী রনক তার জবানবন্দিতে জানায়, তিনি বিভিন্ন নেশায় আসক্ত। গত (৬ আগস্ট) ভোর সাড়ে ৫টার দিকে হেতেমখাঁ ছোট মসজিদের পার্শ্বের বর্নালী হলের পিছনে আমরুর কনফেকশনারী পার্শ্বের ছিনতাই এর উদ্দেশ্যে ওৎপেতে থাকে।

ওই সময় ভিকটিম রাব্বী তিতুমীর ট্রেন ধরার উদ্দেশ্যে ঘাড়ে ও কাধে ব্যাগ নিয়ে পায়ে হেঁটে হেঁটে বর্ণালীর মোড়ের দিকে যাচ্ছিল। ওই সময় শিক্ষার্থী রাব্বী’র পথরোধ করে দা বের করে ছিনতাই এর চেষ্টা করে। রাব্বি দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করলে দুইজনের মধ্যে ধস্তাধস্তি, চিৎকার চেঁচামেচির এক পর্যায়ে রাব্বী’র মাথায় দা দিয়ে সজোরে কোপ মারে রনক।

এবং রাব্বির অবস্থা বেগতিক দেখে, টাকা, ম্যানিব্যাগ, মোবাইল, ব্যাগ না নিয়েই ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায় বলে স্বীকার করে ছিনতাইকারী রনক। পরে সে বিভিন্ন লোকজনের মাধ্যমে জানতে পারে রাব্বি সিটি কলেজের ছাত্র ছিলেন এবং মেসে বসবাস করতেন। আর এ ভাবেই ফারদিন ইসনা আষাড়িয়া রাব্বী (১৯)-এর হত্যাকান্ডের রহস্য উদ্ঘাটন, হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত দা (দাউলি) উদ্ধার, আসামীর স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি লিপিবদ্ধ করছে পুলিশ।

উল্লেখ্য, গত (৬ আগস্ট) ভোর সাড়ে ৫টার দিকে তিতুমীর ট্রেন ধরার উদ্দেশ্যে ঘাড়ে ও কাধে ব্যাগ নিয়ে পায়ে হেঁটে বর্ণালীর মোড়ের দিকে যাচ্ছিল রাব্বি। ওই সময় পেছন থেকে শিক্ষার্থী রাব্বী’র মাথায় দা দিয়ে কোপ মেরে হত্যা করা হয়। সে থেকেই খুনির সন্ধান চালিয়ে যাচ্ছিল পুলিশ।

রাজশাহীর সময় ডট কম – ১৭ আগস্ট ২০১৯





© All rights reserved © 2019 rajshahirsomoy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com