বৃহস্পতিবার, ২২ নভেম্বর ২০১৮, ১২:১১ পূর্বাহ্ন

রাজশাহী নগরীজুড়ে বিদ্যুতের খুঁটিতে ডিশ ও ইন্টারনেট তারের জটলা: বাড়ছে ঝুকি

রাজশাহী নগরীজুড়ে বিদ্যুতের খুঁটিতে ডিশ ও ইন্টারনেট তারের জটলা: বাড়ছে ঝুকি

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহী নগরীজুড়ে বিদ্যুতের পোলে ডিশ ও ইন্টারনেট তারের জটলা। বিদ্যুতের তারের চেয়ে ডিশ লাইনের (ক্যাবল নেটওয়ার্ক) তারই দখল করেছে বিদ্যুৎ পোল। ডিশ লাইনের কর্মীরা সংযোগ দিয়ে অপ্রয়োজনীয় তারগুলো রেখে যায় পোলে।

বিদ্যুতের তার ও ডিশের তারে মিলে মিশে একাকার হয়ে গেছে নগরীর বৈদ্যুতিক তারের পোল গুলো। অতিরিক্ত তারে ঝুঁকি বাড়ছে দুর্ঘটনার। বিদ্যুৎ পোলে গুলোতে প্রতিনিয়তই ডিশ লাইনের সংযোগ তারের জটের কারণে ঢাকা পড়ে যাচ্ছে বিদ্যুৎ সংযোগ তারগুলো। নগরীর সব এলাকার সড়কগুলোতে বিদ্যুতের খুঁটিতে খুঁটিতে রয়েছে ডিশের তারের জটলা।

মূল সড়ক কিংবা গলি সব জায়গাতে তারের জটলা চোখে পড়ে। আবার ডিশ লাইনের বক্সের ভেতরে দেখা যায় পাখির বাসা। এই বাসাতে প্রায় সর্ট সাকির্টে আগুন লাগে। সড়কগুলোর বিদ্যুৎ পোলে ডিশ লাইনের তার অপসারণ করতে নর্দান ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানীর (নেসকো) কোনো পদক্ষেপ নেই।

নেসকো বলছে, তারা অল্প দিন আগে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের কাছে থেকে দায়িত্ব নিয়েছে। বিষয়গুলো তারা গুরুত্বের সাথে দেখবেন। বৈদ্যুতিক পোলে ডিশ লাইনের তার ঝোলানোর কারণে (নেসকো) বিদ্যুৎ লাইনের সংযোগ মাঝে মাঝে বিছিন্ন হওয়ার ঘটনা ঘটে। বৃষ্টি বা ঝড়ের পর বিদ্যুৎ সংযোগ বিছিন্ন হওয়ার একটি বড় কারণ বলে জানান নেসকো কর্তৃপক্ষ।

নেসকোর এক প্রকৌশলী বলেন, বৈদ্যুতিক পোলের সঙ্গে ডিশ লাইনের সংযোগ দেয়া সম্পূর্ণ অবৈধ। কারণ বিদুৎ উন্নয়ন বোর্ডের পোলের সঙ্গে সরকারি বিদ্যুতের তার ছাড়া অন্য কোনো তারের সংযোগ দেয়া যাবে না। যারা ডিশ লাইনের ব্যবসা করছেন তারা নিজের ইচ্ছাতে বিদ্যুতের পোল ব্যবহার করে ডিশ লাইনের সংযোগ দিচ্ছেন। ডিশ সংযোগকারীদের নিষেধ করা হলেও তারা কোনো তোয়াক্কা করে না। অন্যদিকে বিদ্যুৎ পোল ব্যবহার করে এসব তার ছড়িয়ে পড়েছে নগরী জুড়ে।

প্রতিটি পোলের সঙ্গে পাকিয়ে তৈরি হয়েছে তারের কুন্ডলি। ঝুলে থাকা এসব তারের মাধ্যমেই মাঝে মাঝে বিদ্যুৎ স্পৃষ্ট হওয়াসহ নানা রকম দুর্ঘটনা ঘটছে। জঞ্জালের মতো এসব তার নষ্ট করছে রাজশাহী নগরীর সৌন্দর্য। বর্তমানে নগরীতে ডিশ সংযোগ দানকারী প্রতিষ্ঠানগুলো প্রায় পুরোটাই বিদ্যুতের পোল নির্ভর। বিদ্যুৎ বিভাগসহ সরকারের বিভিন্ন সংস্থার কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণে ব্যর্থতার কারণেই রাস্তায় ঝুলন্ত তার সরানোর কাজে বিলম্ব হচ্ছে।

ফলে বিপজ্জনক তারের জট থেকে নগরবাসী মুক্তি পাচ্ছে না। নর্দান ইলেকট্রিসিটি সাপ্লাই কোম্পানীর (নেসকো) তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী হাসিনা দিলরুবা বলেন, ডিশ লাইনের (ক্যাবল নেটওয়ার্ক) মালিকরা নেসকোর অনুমতি ছাড়াই বিদ্যুতের পোল ব্যবহার করছেন। এই বিষয়ে নেসকোর সভায় আলোচনা করা হবে।

এছাড়া ডিশ লাইনের ফলে ছোট-বড় দুর্ঘটনাগুলো ঘটছে বলে তিনি জানান। রাজশাহী সিটি করপোরেশনের (রাসিক) প্রধান প্রকৌশলী আশরাফুল হক বলেন, রাজশাহী সিটি করপোরেশন ডিশ ব্যবসায়ীরা অনুমতি নেয়নি।

অনেক সময় দেখা যায়, বিদ্যুৎ পোল বাল্ব থাকে না। তাদের সঙ্গে আলোচনা করে শৃংঙ্খলায় আনা হবে। ডিশ লাইনের (ক্যাবল নেটওয়ার্ক) ব্যবসায়ী মোঃ হানিফ বলেন, ‘তারা বিদ্যুৎ অফিসকে বিল দেই। তবে বর্তমানে ডিশ লাইনের কি অবস্থা তার জানা নেই।

রাজশাহীর সময় ডট কম২৬ অক্টোবর ২০১৮





© All rights reserved © 2018 rajshahirsomoy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com