মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮, ০৯:১২ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
রাজশাহীতে ২৫ বোতল ফেন্সিডিল জব্দ, আসামীর নাম বাদ দিয়ে ১৫ বোতলের মামলা দিলো বিজিবি আন্তর্জাতিক হিজড়া দিবস উপলক্ষে নগরীতে হিজড়াদের র‌্যালী সাংবাদিক ফাত্তাহ্’র পিতার মৃত্যুতে সাংবাদিক সংস্থার শোক নির্মাণাধীন ভবন থেকে পড়ে ৩ শ্রমিক নিহত কক্সবাজার জেলা জামায়াতের সেক্রেটারির লাশ উদ্ধার চারঘাটে মাদক সম্রাট হাসেম আটক পবিত্র ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী উপলক্ষে রাসিক মেয়রের বাণী “ষড়ং আর্ট গ্রুপের প্রতিষ্ঠাতা” রাজশাহীর সোমা এবার পেলেন ভারতের ‘অগ্নিপথ এ্যাওয়ার্ড’ রাজশাহীতে শেষ হলো সপ্তাব্যাপি কর মেলা আদায় ১৫ কোটি ৫৩ লাখ ভেদরগঞ্জের সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ আসাদুজ্জামান সততা ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করে চলছেন
মানসিক অসুস্থতা প্রমাণে মিথ্যা সার্টিফিকেট দিলে কারাদণ্ড-অর্থদণ্ড

মানসিক অসুস্থতা প্রমাণে মিথ্যা সার্টিফিকেট দিলে কারাদণ্ড-অর্থদণ্ড

বৃহস্পতিবার রাতে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বিলটি পাসের প্রস্তাব করলে তা কণ্ঠভোটে পাস হয়। এরআগে বিলের ওপর বিরোধীদল ও স্বতন্ত্র সদস্যদের আনীত সংশোধনী, বাছাই কমিটিতে প্রেরণ ও জনমত যাচাইয়ের প্রস্তাব কণ্ঠভোটে নাকচ হয়ে যায়। তবে তিনটি সংশোধনী গ্রহণ করেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

পাস হওয়া বিলে মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যায় আক্রান্ত ব্যক্তির স্বাস্থ্যসেবা প্রদান, মর্যাদা সুরক্ষা, সম্পত্তির অধিকার ও পুনর্বাসন এবং কল্যাণ নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় বিধান রাখা হয়েছে। বিলে মানসিক অসুস্থতায় আক্রান্ত ব্যক্তির চিকিৎসা বা অভিভাবক বা ব্যবস্থাপক নিয়োগের বিধান রাখা হয়েছে। এ ছাড়া মানসিক অসুস্থতায় আক্রান্ত ব্যক্তির সম্পত্তির তালিকা প্রণয়ন বা ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে অবহেলা বা আদালতের কোনো নির্দেশনা অমান্য করলে পাঁচ লাখ টাকা অর্থদণ্ড বা তিন বছরের কারাদণ্ড বা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হওয়ার বিধান রাখা হয়েছে।

বিলে বলা হয়েছে, আইন কার্যকরের ৯০ দিনের মধ্যে যে মানসিক হাসপাতালগুলো আছে সেগুলোকে লাইসেন্স নিতে হবে। এই আইন লঙ্ঘন করলে শাস্তি পেতে হবে। সরকারের লাইসেন্স নিয়ে বেসরকারিভাবে মানসিক হাসপাতাল স্থাপনের বিধানও রাখা হয়েছে। এ ছাড়া বিলে মানসিক স্বাস্থ্য সেবা কার্যক্রম পরিচালনা, মানসিক স্বাস্থ্য রিভিউ ও মনিটরিং কমিটি গঠন, মানসিক অসুস্থ ব্যক্তির অধিকার, মানসিক রোগীর চিকিৎসার অধিকার, পুনর্বাসন, মানসিক অবস্থার বিচারিক অনুসন্ধান, মানসিক রোগীর অভিভাবকত্ব, তার সম্পত্তির রক্ষণা বেক্ষণসহ সশ্লিষ্ট বিষয়ে সুনির্দিষ্ট বিধান রাখা হয়েছে।

বিলের উদ্দেশ্য ও কারণ সম্বলিত বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ১৯১২ সালের বিদ্যমান আইনটি মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক একমাত্র আইন। শত বছরের পুরনো এ আইনটির  প্রাসঙ্গিকতা ও সময়োপযোগিতা বহু আগেই হ্রাস পেয়েছে। সে প্রেক্ষাপটে মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যায় আক্রান্ত নাগরিকগণের মর্যাদা সুরক্ষা ও স্বাস্থ্যসেবা প্রদান, সম্পত্তির অধিকার, পুনর্বাসন ও সার্বিক কল্যাণ নিশ্চিতকরণে একটি যুগোপযোগী আইন প্রণয়নের প্রয়োজনীয়তা অনস্বীকার্য। তাই শত বছরের পুরনো এ সংক্রান্ত আইনিট রহিতক্রমে ‘মানসিক স্বাস্থ্য আইন-২০১৮’ প্রণয়ন করা প্রয়োজন। জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড বিল পাস পাঠ্য পুস্তক মুদ্রণকারী ভুল প্রতিবেদনে দিলে তিন বছরের কারাদণ্ড বা অর্থদণ্ডের বিধান রেখে জাতীয় সংসদে পাস হয়েছে ‘জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড আইন-২০১৮’ বিল। ওই বিলে বোর্ড অনুমোদিত বই ছাড়া কোনো বিদ্যালয়ে অন্য বই পাঠ্যপুস্তক হিসেবে নির্ধারণ করতে পারবে না মর্মে বিলে বিধান রাখা হয়েছে।সূত্র:কালের কণ্ঠ।

ডেপুটি স্পিকার অ্যাডভোকেট মো. ফজলে রাব্বি মিয়ার সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশনে শিক্ষা মন্ত্রী নূরুল ইসলাম নাহিদ বিলটি পাসের প্রস্তাব উত্থাপন করলে তা কণ্ঠভোটে পাস হয়

রাজশাহীর সময় ডট কম২৬ অক্টোবর ২০১৮





© All rights reserved © 2018 rajshahirsomoy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com