মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮, ১০:৩৩ অপরাহ্ন

রাজশাহীতে শান্তিপূর্ণ ও অহিংস নির্বাচনের শপথ নিয়েছেন আওয়ামী লীগ ও বিএনপি’র নেতৃবৃন্দ

রাজশাহীতে শান্তিপূর্ণ ও অহিংস নির্বাচনের শপথ নিয়েছেন আওয়ামী লীগ ও বিএনপি’র নেতৃবৃন্দ

নিজস্ব প্রতিনিধি : রাজশাহী বিভাগের বিভিন্ন জেলার আওয়ামী লীগ ও বিএনপি থেকে আগত প্রায় ২০০ জন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ রাজশাহী মহানগরীতে একই মঞ্চে শান্তিপূর্ণ ও অহিংস নির্বাচনের শপথ গ্রহণ করেছেন। আজ বৃহস্পতিবার বিকালে রাজশাহী নগরীর সাহেব বাজারে অবস্থিত মুন লাইট গার্ডেনে এক জাঁকজমকপূর্ণ পরিবেশে রাজশাহীর রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে “শান্তিতে বিজয়” ক্যাম্পেইনের আঞ্চলিক উদ্বোধন করা হয়েছে।

ইউএসএআইডি এবং ইউকেএইড এর যৌথ অর্থায়নে এবং ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের প্রকল্পের আওতায় “শান্তিতে বিজয়” ক্যাম্পেইনটি পরিচালিত হচ্ছে। জাতীয় নির্বাচনের পূর্বে শান্তিপূর্ণ নির্বাচন ও সহনশীল রাজনীতির চর্চা বৃদ্ধিতে, “শান্তিতে বিজয়” ক্যাম্পেইনটি বাংলাদেশের সব নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল, প্রার্থী এবং সাধারণ জনগণকে সচেতন করবে ও তাদের অংশগ্রহণ করার সুযোগ তৈরি করবে। আজকের আঞ্চলিক উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রাজশাহী বিভাগের বিভিন্ন জেলা থেকে আগত আওয়ামী লীগ ও বিএনপির নেতৃবৃন্দ রাজনৈতিক সহনশীলতা ও সম্প্রতির সমর্থনে একসঙ্গে দাঁড়িয়ে সহিংসতার বিরুদ্ধে অঙ্গীকার করেছেন।

অনুষ্ঠানে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান মিনু বলেন, অতীতের অহিংস আচরণ থেকে আমাদের সরে আসা উচিত এবং একে অপরকে অভিযোগ করা থেকে আমাদের বিরত থাকা উচিৎ। রাজনীতিতে শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য আমাদের নিজেদের প্রতি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হওয়া উচিৎ। শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের জন্য রাজশাহীর সুনাম আছে। আমাদের সব সময় এমন শান্তিপূর্ণ থাকা উচিৎ। আমরা আশা করি, রাজশাহী শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানের একটি উদাহরণ সৃষ্টি করবে এবং সারা বাংলাদেশ তা অনুসরণ করবে।

রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাব্লিউ সরকার বলেন, আমরা শান্তিপ্রিয় জনগণ। আমরা সহিংসতা চাই না। যদি ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল আমাদের একসঙ্গে বসাতে পারে, তবে আমরা কেন একসঙ্গে বসতে পারি না। মতভেদ থাকবেই আর এটাই গণতন্ত্রের সৌন্দর্য। মতভিন্নতা যেন আমাদেরকে একে অপরের প্রতি সহিংস না করে তোলে এটাই কাম্য।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য এবং রাজশাহী জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. আবদুল খালেক বলেন, শান্তিপূর্ণ নির্বাচন নিশ্চিত করার জন্য আমাদের যতটা সম্ভব কাজ করে যাওয়া উচিৎ। সহিংসতা দেশের পরিবেশকে নষ্ট করে।
কুষ্টিয়া ইসলামি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম বলেন, ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল রাজনীতিবিদদের জন্য একটি প্লাটফরম তৈরি করেছে। শান্তি প্রতিষ্টায় রাজনীতিবদরা ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে এটাই কাম্য।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, রাজশাহী মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলন, রাজশাহী মহানগর বিএনপির সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, রাজশাহী মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান আসাদ, বিএনপির সাবেক সংসদ সদস্য রায়হান আকতার রনি, নাটোর জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রত্না আহমেদ, বগুড়া জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি লাভলি রহমান, রাজশাহী জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মর্জিনা পারভিন, রাজশাহী জেলার বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টির সাধারণ সম্পাদক রাগিব মুন্না।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী বিভাগের রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সুশীল সমাজের সদস্যবৃন্দ, ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনালের রাজনৈতিক ফেলো, সামাজিক-সাংস্কৃতিক কর্মীবৃন্দসহ স্থানীয় গণমাধ্যম প্রতিনিধিবৃন্দ।

রাজশাহীর সময় ডট কম২৫ অক্টোবর ২০১৮





© All rights reserved © 2018 rajshahirsomoy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com