শুক্রবার, ১৮ জানুয়ারী ২০১৯, ০৮:২৬ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
জাকির নায়েক মালয়েশিয়াতেও আর নিরাপদ নয়

জাকির নায়েক মালয়েশিয়াতেও আর নিরাপদ নয়

আন্তর্জাতিক ডেস্কসন্ত্রাস ছড়ানো এবং তাতে উস্কানি দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে তার। বিরুদ্ধে। সেই কারণেই দেশ ছাড়তে হয়েছে তাকে। সেই বিদেশের মাটিও এখন আর তার জন্য নিরাপদ নয়।

আলোচিত ব্যক্তি হল বিতর্কিত ধর্ম প্রচারক জাকির নায়েক। যার বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদে উস্কানি দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। ২০১৬ সালে ঢাকার গুলশনে সন্ত্রাবাদী হামলার পিছনেও নাম জড়িয়ে যায় মুম্বইয়ের বাসিন্দা ডাঃ জাকির নায়েকের নাম। বাংলাদেশের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয় যে জাকিরের উস্কানিমূলক বক্তব্য থেকে অনুপ্রাণীত হয়েই গুলশনে হামলা চালিয়েছিল জঙ্গিরা।

সেই সময় মধ্য প্রাচ্যে ছিল জাকির। ঢাকা হামলার পরেই তাকে নিয়ে ভারতে বিতর্ক শুরু হয়। নিষিদ্ধ করা তার সংস্থা ইসলামিক রিসার্চ ফাউন্ডেশনকে। পরিস্থিতি বেগতিক বুঝে আর দেশে ফেরেনি জাকির নায়েক। আশ্রয় নিয়েছিল মালয়েশিয়ার মাটিতে। ওই দেশের প্রধানমন্ত্রী মহাথির মহম্মদ জাকিরের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। জাকির নায়েককে ভারতে ফেরত নিয়ে আসার জন্য উদ্যোগ নেওয়া অলেও তা সম্ভব হয়নি। আন্তর্জাকিত কূটনীতির সৌজন্যে পার পেয়ে গিয়েছিল জাকির। আরও বড় বিষয় ছিল জাকিরের উপরে খোদ মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রীর সমর্থন।

তবে ওই দেশের মাটিও আর নিরাপদ নয় জাকির নায়েকের জন্য। কারণ তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের উপযুক্ত প্রমাণ পেলেই জাকিরকে তুলে দেওয়া হবে ভারতের হাতে। ভারত সফরে এসে এমনই জানিয়েছেন মালয়েশিয়ার সাংসদ আনোয়ায় ইব্রাহীম। ওই দেশের শাসকদলের এই সাংসদ পাঁচ দিনের ভারত সফরে এসেছেন। দিল্লিতে দ্যা হিন্দু সংবাদপতকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে জাকির নায়েক সম্পর্কে মুখ খুলেছেন আনোয়ার ইব্রাহীম।

জাকির নায়েক নিয়ে ভারত এবং মালয়েশিয়ার মধ্যে আরও আলোচনা দরকার বলে জানিয়েছেন সাংসদ আনোয়ার ইব্রাহীম। তাঁর কথায়, “জাকির নায়েক নিয়ে দুই দেশের সরকারের মধ্যে আরও আলোচনা দরকার। জাকির বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ সম্পর্কে উপযুক্ত তথ্য এবং প্রমাণ মালয়েশিয়ার হাতে তুলে দিক ভারত। আমরা নিশ্চয় জাকিরের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব। জাকিরকে ভারতে ফেরত পাঠানোর ব্যবস্থাও করা হবে।”

মালয়েশিয়ার রাজনীতির একজন গুরুত্বপূর্ণ সদস্য আনোয়ার মহম্মদ। ১৯৯০ সালে প্রধানমন্ত্রী মহাথির মহম্মদের উপপ্রধানমন্ত্রী ছিলেন তিনি। তিন দশক পরে এই আনোয়ার মহম্মদ মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী হতে চলেছেন। সেই পদে অভিষেকের আগে পাঁচ দিনের ভারত সফরে এসে দুই দেশের সম্পর্ক মজবুত করার বিষয়ে আলোচনা করেছেন।

দুর্নীতি মামলায় জড়িয়ে যাওয়ায় জেলে যেতে হয়েছিল আনোয়ার ইব্রাহীমকে। গত বছরেই তিনি মুক্তি পেয়েছেন। তাঁর জেলে থাকার সময়ে জাকিরকে নিয়ে সিদ্ধান্ত নেয় মালয়েশিয়া প্রশাসন। সেই কারণে জাকির সম্পর্কে বিশদ তথ্য তাঁর কাছে নেই বলে দাবি করেছেন আনোয়ার ইব্রাহীম। তিনি বলেছেন, “ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে খুব পরিষ্কার করে আমি জানিয়ে দিচ্ছি যে আমরা কখনই সন্ত্রাসবাদকে সমর্থন করব না।” মালয়েশিয়া প্রশাসন সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে সবস্ময় কড়া পদক্ষেপ নিয়ে এসেছে বলেও দাবি করেছেন আনোয়ার।

রাজশাহীর  সময়  ডট  কম ১০ জানুয়ারি, ২০১৯





© All rights reserved © 2018 rajshahirsomoy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com