বুধবার, ১৯ Jun ২০১৯, ১০:৫৪ পূর্বাহ্ন

রাজশাহীতে বেড়েছে গরুর মাংসের দাম সাথে পোল্ট্রিসহ অন্যান্য মাংসের দামও

রাজশাহীতে বেড়েছে গরুর মাংসের দাম সাথে পোল্ট্রিসহ অন্যান্য মাংসের দামও

ফাইল ছবি

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহীতে বেড়েছে গরুর মাংসের দাম। সেই সঙ্গে বেড়েছে পোল্ট্রিসহ অন্যান্য মাংসের দামও। এছাড়াও অল্পবিস্তর দাম উঠানামা করেছে মাছের বাজারে। তবে মোটামুটি স্থিতিশীল রয়েছে চাল ও সবজির দাম।

শুক্রবার রাজশাহীর বিভিন্ন কাঁচাবাজার ঘুরে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

দীর্ঘদিন ধরে বাজারে প্রতি কেজি গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছিল ৪৩০-৪৫০ টাকা কেজি দরে। কিন্তু গতকাল প্রতি কেজিতে ৩০-৪০ টাকা বেড়ে বাজারে গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৪৮০ থেকে ৫০০ টাকায়।

এছাড়াও দাম বেড়েছে পোল্ট্রিসহ অন্যান্য মুরগি ও খাশির মাংসের। পোল্ট্রি মুরগি বিক্রি হয়েছে ১১০-১৩০ টাকা, খাশি ৭০০-৭৫০ টাকা, সোনালী ২০০-২১০ টাকা, দেশি মুরগি ৩২০-৩৫০ টাকায়, হাস ২৭০-২৯০ টাকা, রাজহাঁস ৩২০-৩৫০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে।

সবজির মধ্যে বাজারে দেশি আলু ২৬ টাকা, দেশি আলু ৩০ টাকা, ফুলকপি ১০-১৫ টাকা, সিম ১৫-২০ টাকা, শশা ২০ টাকা, বেগুন ১৫-২০ টাকা, টমেটো ২৫-৪০ টাকা, বরবটি ৩০-৩৫ টাকা, পেঁয়াজের ফুলকা ৮-১০ টাকা, গাজর ৩০ টাকা, বাধাকপি প্রতি পিস ১০-১৫ টাকা, লাউ প্রতি পিস ১৫-২০ টাকা ও মিষ্টি কুমড়া ২০-২৫ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে।

অন্যদিকে মসলার মধ্যে আদা ১০০ টাকা, সকল ধরনের পেঁয়াজ ২০ টাকা, পুরোনো দেশি পেঁয়াজ ২৫ টাকা, রসুন ৭০ টাকা, চায়না রসুন ৮০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়াও শাকের মধ্যে কলমি, পালং ও পুঁইশাক ১০ টাকা, লালশাক ১৫ টাকা ও খেসারী শাক ৩০-৪০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে।

ডালের মধ্যে বুট ডাল ৮০ টাকা, দেশি বুট ১০০ টাকা, এ্যাংকর ডাল ৪০ টাকা, মসুর ডাল ৫০-৬০ টাকা, দেশি মসুর ৮০ টাকা ও খেসারী ডাল ৪৫-৫০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে। এছাড়াও ভোজ্য তেলের দাম কমেছে বলে জানিয়েছেন বিক্রেতারা। দাম কমে প্রতি লিটার খোলা সয়াবিন তেল ৮০-৯০ টাকা ও বোতলজাত ১০০ টাকার মধ্যে বিক্রি হয়েছে।

মাছের বাজারে রকমভেদে দাম উঠানামা করতে দেখা গেছে। বাজারে রকমভেদে সিলভার কার্প ৮০-১৫০ টাকা, পাঙ্গাশ ৮০-১৪০ টাকা, চিংড়ি ও গলদা চিংড়ি ৫০০-১০০০ টাকা, বাটা ১২০-১৪০ টাকা, বড় শোল ৯০০ টাকা এবং ছোট শোল ২০০-৬০০ টাকা, পাবদা ৪০০-৬৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়াও রুইয়ের ওজনভেদে প্রতি কেজি ১৬০-৩৫০ টাকা, শিং ৫০০-৮০০ টাকা ও ইলিশ ৫০০-৮০০ টাকা, কাতল ২৫০-৩৫০ টাকা, গ্রাস কার্প ২০০ টাকা, কালবাউশ ২৫০ টাকা, ট্যাংরা ৫০০-৮০০ টাকা, বাগাড় মাছ ৮০০ টাকা, আইড় ৪০০ টাকা, বোয়াল ৬০০ টাকা কেজিতে বিক্রি হয়েছে।

অন্যদিকে দাম মোটামুটি স্থিতিশীল থেকে চালের বাজারে প্রতি কেজি আটাশ ৩৮-৪০ টাকা, স্বর্ণা ৩০-৩২ টাকা, অটো আটাশ ৩৭-৩৯ টাকা, উনত্রিশ ৩৬-৩৮ টাকা, হাইব্রীড ২৮-৩০ টাকা, মিনিকেট ৫০-৫২ টাকা, পোলাও চাল ৬০-৮৫ টাকা, কাটারীভোগ ৬০ টাকা, কালিজিরা ৮০ টাকা ও চিনিগুড়া ৮৫-৯০ টাকা দরে বিক্রি হয়েছে।

রাজশাহীর সময় ডট কম০৪ জানুয়ারী ২০১৯





© All rights reserved © 2018 rajshahirsomoy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com