রবিবার, ১৮ অগাস্ট ২০১৯, ০৯:২৫ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বিশ্বের সব থেকে হ্যান্ডসাম পুরুষের শিরোপা পেলেন হৃত্বিক রণবীরকে প্রকাশ্যে ‘ড্যাডি’ বলে ডাকছেন দীপিকা ! চাঙ্কি পান্ডে কন্যা অনন্যার অভিনয়ের মুগ্ধ পরিচালক পাকিস্তানকে দেওয়া অর্থ সাহায্যের ৪৪০ মিলিয়ন ডলার কেটে নিল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ভুটানে রাজকীয় অভ্যর্থনা পেলেন, নরেন্দ্র মোদী অজয়কন্যা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিদ্রুপের শিকার সাতক্ষীরায় খাবারের লোভ দেখিয়ে শিশুকে ধর্ষণ রাজশাহীতে কলেজ শিক্ষার্থী হত্যা মামলার প্রধান আসামী আটক: স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নিলাদ্রী থেকে বাড়ি ফেরার পথে তরুণী ধর্ষণের ঘটনায় ধর্ষক গ্রেফতার পুনঃনিরীক্ষণে রাজশাহী শিক্ষবোর্ডের ৬৬ পরীক্ষার্থী ফেল থেকে পাস
স্ত্রীর দায়ের করা যৌতুক মামলায় পুলিশের এএসআই কারাগারে

স্ত্রীর দায়ের করা যৌতুক মামলায় পুলিশের এএসআই কারাগারে

ফাইল ছবি

রাজশাহীর সময় ডেস্ক : নেত্রকোনায় স্ত্রীর দায়ের করা যৌতুক মামলায় পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মাজহারুল ইসলামকে (৩৫) কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে নেত্রকোনা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে হাজির হয়ে জামিন প্রার্থনা করলে বিচারক জামিন নামঞ্জুর করে তাঁকে কারাগারে পাঠিয়ে দেন।

পুলিশ কর্মকর্তা মাজহারুল ইসলামের বাড়ি মদন উপজেলার শিবাশ্রম গ্রামে। তিনি বর্তমানে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশে (ডিএমপি) কর্মরত। তাঁর স্ত্রীর নাম নিলুফার ইয়াসমিন ওরফে লাকী (২৪)।

স্থানীয় বাসিন্দা ও আদালত সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, মদনের শিবাশ্রম গ্রামের মৃত আবদুল হাকিমের ছেলে মাজহারুল ইসলামের সঙ্গে ২০১৩ সালের ২২ জুন নেত্রকোনা পৌর শহরের কাটলি এলাকার বাসিন্দা আবদুল ওয়াদুদের মেয়ে নিলুফার ইয়াসমিনের বিয়ে হয়।

বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই মাজহারুল ইসলাম তাঁর স্ত্রীকে বাবার বাড়ি থেকে যৌতুকের টাকা আনার জন্য নানানভাবে চাপ দেন। এরপর নিলুফার তাঁর বাবার কাছ থেকে ১ লাখ টাকা এনে দেন।

পরে তাঁর স্বামী মোটরসাইকেল কেনার কথা বলে আরও টাকা আনার জন্য চাপ দিতে থাকেন।

২০১৭ সালের ৩ মে স্ত্রী নিলুফারকে ৩ লাখ টাকা এনে দিতে বলেন মাজহারুল। টাকা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় নিলুফারকে বিভিন্ন সময় শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করেন মাজহারুল। এতে মাজহারুলকে প্ররোচিত করেন তাঁর বড় ভাই ও মা।

এই ঘটনায় ২০১৮ সালের ৩০ অক্টোবর নিলুফার ইয়াসমিন বাদী হয়ে স্বামী মাজহারুল ইসলাম, শাশুড়ি হোসনা আক্তার ও ভাশুর আজহারুল ইসলামের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। ওই মামলায় মাজহারুল ইসলাম বৃহস্পতিবার হাজিরা দিতে গেলে বিচারক তাঁর জামিন নামঞ্জুর কারাগারে পাঠান।

নারী ও শিশু নির্যাতন মামলায় মাজহারুল ইসলামকে কারাগারে পাঠানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নেত্রকোনার কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক গোলক চন্দ্র বসাক। সূত্র: প্রথম আলো।

রাজশাহীর সময় ডট কম০৪ জানুয়ারী ২০১৯





© All rights reserved © 2018 rajshahirsomoy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com