মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮, ১২:৩৭ পূর্বাহ্ন

দক্ষিণ সুনামগঞ্জের রিপা’র আত্মহত্যা নিয়ে রহস্য! আদালতে হত্যা মামলা দায়ের

দক্ষিণ সুনামগঞ্জের রিপা’র আত্মহত্যা নিয়ে রহস্য! আদালতে হত্যা মামলা দায়ের

কাজী জমিরুল ইসলাম মমতাজ (সুনামগঞ্জ): দক্ষিণ সুনামগঞ্জের রিপা’র আত্মহত্যা নিয়ে রহস্য! পরিকল্পিত হত্যাকে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেয়ার অভিযোগ উঠছে স্বামী ও শশুরবাড়ীর লোকদের বিরুদ্ধে।

দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার জামলাবাজ গ্রামে এই ঘটনাটি ঘটেছে। নিহত গৃহবধুর নাম রিপা আক্তার। সে একই গ্রামের মৃত আকবর আলীর মেয়ে এবং আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী।

মৃত্যুর প্রায় ৫ দিনপর বুধবার নিহত রিপার বড় ভাই ইরন মিয়া বাদী হয়ে সুনামগঞ্জ জ্যুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নং-১৯৮/২০১৮ ইং-দক্ষিণ সুনামগঞ্জ তারিখ- ০৫-১২-১৮ইং। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে তদন্ত করার জন্য দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানা পুলিশকে আদেশ দিয়েছেন বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গিয়েছে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, জামলাবাজ গ্রামের মৃত আব্দুল লতিফের ছেলে আনোয়ার হোসেন (৩৭) অতিমাত্রায় পর নারী আসক্ত। তার ঘরে দুইজন স্ত্রী থাকার পরও প্রতিবেশী হওয়ার সুবাধে নাবালিকা রিপা আক্তারকে ফুসলিয়ে তার সাথে অনৈতিক সম্পর্ক স্থাপন করে। পরবর্তীতে ২২/১০/১৮ইং তারিখে পরিবারের অসম্মতিতে সে রিপা বেগমকে বিয়ে করে।

লোক লজ্জার ভয়ে অনিচ্ছা সত্ত্বেও রিপার পরিবার বিয়ে মেনে নেয়। রিপা আক্তারের দুই ভাই কাজের সুবাদে সিলেটের পীরের বাজার এবং মা তার মামার বাড়ী সুনামগঞ্জের বনানীপাড়ায় ছিলেন। তখন রিপা আক্তার তার স্বামীকে নিয়ে পিতার বাড়ীতে অবস্থান করছিলেন।

গত ২৮/১১/১৮ইং বুধবার রাত ২ ঘটিকা হইতে সকাল ৮ ঘটিকার মধ্যে আনোয়ার হোসেন ও তাদের পরিবারের সদস্যরা মিলে রিপা বেগমকে গলাটিপে হত্যা করে তার লাশ টিনের ছাপড়া ঘরের ধারশের মধ্যে ঝুলিয়ে রাখে। ঘটনার দিন সকাল ৮টার দিকে প্রতিবেশীদের পক্ষ থেকে ফোন করে রিপা আত্মহত্যা করেছে বলে খবর দেয়া হয়।

খবর শুনে মা এবং ছোট ভাই বাড়ীতে এসে রিপার ঝুলন্ত লাশ দেখতে পান। এসময় লাশের শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্নও উপস্থিত প্রতিবেশীদের দেখানো হয়। পরবর্তীতে ময়নাতদন্ত শেষে তার লাশ দাফনও করা হয়।

এ ব্যাপারে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলা নং-১৬/১৮ তারিখ: ২৮/১১/১৮ইং। নিহত রিপার পরিবারের পক্ষ থেকে তাহার মা জানান: আমরা থানায় কোন অপমৃত্যু মামলা দায়ের করিনি ময়না তদন্তের কথা বলে থানা পুলিশ একটি কাগজে আমার স্বাক্ষর নিয়েছে।

আমরা হত্যা মামলা করার জন্য থানায় গেলে কর্তৃপক্ষ মামলা নিতে অপারগতা প্রকাশ করে আদালতের স্মরনাপন্ন হওয়ার পরামর্শ দেন। ফলশ্রুতিতে ৫/১২/১৮ ইং রিপার বড় ভাই ইরন মিয়া বাদী হয়ে আনোয়ার হোসেনকে ১নং আসামী করে ৬ জনের নামোল্লেখ এবং ২/৩ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলায় আসামী হলেন- ১। মৃত আব্দুল লতিফের পুত্র আনোয়ার হোসেন (৩৭), তার সহোদরদের মধ্যে ২। আক্কাছ (৪৫), ৩। ফরিদ (৪৩), ৪। ফারুক (৩৫), ৫। দিলোয়ার (৩২) ও ৫। আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী রেহেনা আক্তার (৩০)।

এ ব্যাপারে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরীর সাথে আলাপকালে তিনি জানান- এখনো মামলার কপি আমাদের হাতে আসেনি। আমাদের কাছে আসলে আইনানুযায়ী ব্যবস্থা নেব।

রাজশাহীর সময় ডট কম০৮ ডিসেম্বর ২০১৮





© All rights reserved © 2018 rajshahirsomoy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com