সোমবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮, ১১:৪৭ অপরাহ্ন

সিটি নির্বাচনের ধারাবাহিকতায় সংসদ নির্বাচনেও সদরে নৌকার বিজয় হবে

সিটি নির্বাচনের ধারাবাহিকতায় সংসদ নির্বাচনেও সদরে নৌকার বিজয় হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেছেন, ২০১৩ সালের সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মানুষ যে ভুল করেছিল, ২০১৮ সালে এসে সেটি করেননি। আর করবে বলে মনে করি না। ২০১৮ সালের সিটি নির্বাচনে জনগণ বিপুল ভোটে নৌকাকে বিজয়ী করেছে। সিটি নির্বাচনের ধারাবাহিকতায় জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও রাজশাহী সদর আসনে নৌকা বিজয়ী হবে। ১৪ দলের প্রার্থী ফজলে হোসেন বাদশা আবারও এমপি নির্বাচিত হবেন।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাত আটটায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজের ডা. কাইছার রহমান চৌধুরী মিলনাতয়নে ১৪ দলের থানা পর্যায়ের বর্ধিত সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। রাজশাহী ১৪ দলের সমন্বয়ক ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি লিটন বলেন, আমি বিশ^াস করি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আবারো ক্ষমতায় আসবেন। সম্প্রতি মার্কিন কংগ্রেসে একজন কংগ্রেসম্যান একটি বিল উত্থাপিত করেছেন, এদেশে যারা ষড়যন্ত্র করে, জ¦ালাও পোড়ার করে তাদের বিরুদ্ধে। এটির কারণে আমাদের সাহস আরো বেড়ে গেছে। আমরা বুঝতে পেরেছি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, চীনসহ বড় বড় দেশগুলো বাংলাদেশে সুষ্ঠু নির্বাচন দেখতে চায়, তারা সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে, আর উন্নয়নের পক্ষে।

মেয়র বলেন, আমি ও বাদশা ভাই দুইজন মিলে রাজশাহীর উন্নয়ন করবো। যতদিন সুস্থ্য আছি, দাঁড়িয়ে থাকতে পারবো, ততদিন পর্যন্ত রাজশাহীর উন্নয়ন করে যাব। জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সদর আসনে যদি নৌকা ছাড়া অন্য কেউ বিজয়ী হয়, তবে উন্নয়ন বাধাগ্রস্থ হবে। আসুন আমরা সবাই একজোট হয়ে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে নির্বাচনে নৌকাকে বিজয়ী করি।

অতিথির বক্তব্যে রাজশাহী-২ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, আমি বিশ^াস করি নির্বাচনে আমরা বিজয়ী হবো। কেউ যদি নির্বাচন বানচালের চেষ্টা করো, তাহলে তা প্রতিহত করা হবে। তিনি বলেন, আমি ও মেয়র লিটন দুই ভাইয়ের মতো আগামীতে একসাথে কাজ করবো। বাদশা বলেন, ড. কামাল বলেন বঙ্গবন্ধু তার নেতা। অথচ তিনি আছেন জামায়াত-বিএনপির সাথে। ড. কামাল বঙ্গবন্ধুকে নেতা বলে নিজেকে আত্মরক্ষা করছেন, অন্যদিকে বঙ্গবন্ধু কন্যার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছেন।

সভা সঞ্চালনা করেন মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার। সভায় সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশার সহধর্মিনী অধ্যাপিকা তসলিমা খাতুন, সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র-১ সরিফুল ইসলাম বাবু, প্যানেল মেয়র-২ রজব আলী, মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মীর ইকবাল, অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বাদশা, মোহাম্মদ আলী কামাল, নিঘাত পারভীন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক হোসেন, রেজাউল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক আজিজুল আলম বেন্টু, আসলাম সরকার, যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক মীর তৌফিক আলী ভাদু, মহানগর ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি লিয়াকত আলী লিকু, সাধারণ সম্পাদক দেবাশিষ প্রামাণিক দেবু, সম্পাদকম-লীর সদস্য অ্যাডভোকেট এন্তাজুল হক বাবু, জাসদের জেলার সভাপতি মজিবুল হক বকু, বাংলাদেশ জাসদের মহানগর সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম শফিক, জাসদের অপর অংশের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মাসুদ শিবলী, নগর আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক ফিরোজ কবির সেন্টু, স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক এএফএম জাহিদ, বঙ্গবন্ধু পরিষদের নগর কমিটির সদস্য মো. লিয়াকত আলী, ওয়ার্কার্স পার্টির জেলার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অধ্যাপক আশরাফুল হক তোতা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

রাজশাহীর সময় ডট কম০৭ ডিসেম্বর ২০১৮





© All rights reserved © 2018 rajshahirsomoy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com