মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৮:৫২ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
রাজশাহীতে বিশ্ব মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে পরামর্শক সভা অনুষ্ঠিত রাজশাহীতে মানসিক স্বাস্থ্য বিষয়ক শিখন অভিজ্ঞতা ও স্থায়ীত্বকরন সভা সুনামগঞ্জে র‌্যাবের অভিযানে কৃষক গ্রেফতারের প্রতিবাদ ও মুক্তির দাবীতে সংবাদ সম্মেলন শিক্ষার্থীদের ঝড়ে পড়া রোধে সকলকে সচেতন হতে হবে : জাহাঙ্গীর  দক্ষিণ সুনামগঞ্জে বিএনপি কর্মী সমাবেশ অনুষ্ঠিত উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে নৌকায় ভোট দিন : মেয়রপত্নী রেনী চারঘাটে পোস্টার ছেঁড়াকে কেন্দ্র করে আ’লীগ-বিএনপি’র ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া এই নির্বাচন বাংলাদেশকে রক্ষা করার নির্বাচন রাবিতে মিনু বিএনপি প্রার্থী মঈন খানের নির্বাচনী প্রচারণায় হামলা চালিয়েছে যুবলীগ ও ছাত্রলীগ টুঙ্গীপাড়া থেকে বৃহস্পতিবার ফেরার পথে ৭টি পথসভা করবেন প্রধানমন্ত্রী
মিরাক্কেলের ‘অ্যাডাল্ট জোকস’ পছন্দ করতেন না পরাণ

মিরাক্কেলের ‘অ্যাডাল্ট জোকস’ পছন্দ করতেন না পরাণ

পার্কের বাইরে দেয়াল ঘেঁষে কথা বাংলাদেশের কয়েকজন সাংবাদিকের সাথে কথা বলছিলেন পশ্চিমবঙ্গের জনপ্রিয় অভিনেতা পরাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। তার কাছে জানতে চাওয়া হলো, পশ্চিমবঙ্গের টেলিভিশন চ্যানেল জি বাংলার মিরাক্কেলে ‘অ্যাডাল্ট জোকস’ নিয়ে মন্তব্য কী?

তিনি এসব সমর্থন করেন না জানিয়ে বললেন, ‘ওরা যখন এসব করছে হয়তো মনে করছে তারা এসব ভালো করছে। যারা এসব করছে তাদের প্রতি আমার কোনো ইয়ে (অভিযোগ) ছিলনা, কারণ তাদের ভালোবাসি তো আমি। কিন্তু তারা অসংযত আবেগতাড়িত হয়ে একটা অস্থিরতার মধ্যে এমনসব করছে, তারা ভাবছে সাংঘাতিক কিছু করছে। এইটা আমি বোঝাতে পারতাম না তাদের।’

একজন গুণী অভিনেতা হয়েও মিরাক্কেলে ফানি শো’তে আসার কারণ সম্পর্কে পরাণ কীভাবে জড়ালেন, এটা আপনার সঙ্গে যায় কি না- এমন প্রশ্নের জবাবে পরাণ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, আসলে যে কোনো একটা অনুষ্ঠানে যাবো আমি। বা কোনো একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে যাবো। উৎসব হোক, সেখানে আমি যাবো। এর কারণ উৎসবটাকে আমি ভালোবাসি, বিষয়টাকে আমি ভালোবাসি, সেখানে হাজিরা হওয়ার জন্য আমার মনটা ছটইফট করে। কিন্তু সেখানে গিয়ে যে সবটাই আমার মনের মতো করে পাবো এমন তো আর পৃথিবীর কোথাও হয় না। অস্থিরতা তো ভেতরে থাকবেই। একটু নড়বড়ে তো থাকবে- এটাই নিয়েই তো জীবন।

অভিনয় জীবনের প্রাপ্তি অপ্রাপ্তি নিয়ে কোনো আক্ষেপ নেই পরাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের। প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তির হিসেবে মেলাতেও আগ্রহ নেই কলকাতার এই জনপ্রিয় অভিনেতার। বললেন, ‘জীবনে কখনোই প্রাপ্তি-অপ্রাপ্তির হিসেবে মেলাইনি, আর কখনোই মেলাবোও না। আমার এই পথ চলাতেই আনন্দ। চলছি, হাঁটছি কুড়োচ্ছি।’

আর্ট ফিল্ম ও কমার্শিয়াল ফিল্ম সাম্প্রতিক সময়ে প্রচলিত হওয়া ধারাকে ভিন্ন কিছু মনে করেন না পরাণ। তিনি বলেন, কমার্শিয়াল ফিল্ম বলতে আলাদা কিছু নেই। সবটাই কমার্স। যে ছবি যেভাবে পারছে সেভাবে মানুষের মন জয় করার চেষ্টা করছেন।অর্থ উপার্জনের চেষ্টা করছে। শিল্পটাকে প্রাধান্য দিয়ে উৎপাদন করার চেষ্টা করছেন।

সম্প্রতি যুক্ত হয়েছেন দুই বাংলার যৌথ প্রযোজনার ছবি ডেব্রি অব ডিজায়ার-এ। ছবিটি পরিচালনা করছেন কলকাতার নামী পরিচালক ইন্দ্রনীল চৌধুরী। এতে অভিনয় করছেন বাংলাদেশের অপি করিম, কলকাতার ঋত্বিক চক্রবর্তী। এছাড়াও বাকি কুশীলবদের নাম এখনো জানা যায়নি।সূত্র:কালের কণ্ঠ।

সুর্যের তেজ বাড়তে বাড়তে আরেক দফা ইন্টারভিউ দিতে বসা থেকে উঠে ছায়ায় গেলেন পরাণ বন্দ্যোপাধ্যায়।

রাজশাহীর সময় ডট কম০৩ ডিসেম্বর ২০১৮





© All rights reserved © 2018 rajshahirsomoy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com