শুক্রবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০১৯, ১০:১৬ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
রাজশাহীর ঘোড়ামারা স.প্রা বিদ্যালয়ে স্টুডেন্ট কাউন্সিল নির্বাচন অনুষ্ঠিত রাজশাহীতে ভাষা শহীদের প্রতি বিভিন্ন সংগঠনের শ্রদ্ধা রাজশাহী নগরীতে নসিমনের ধাক্কায় রুয়েট কর্মচারী নিহত ভাষা আন্দোলনের নেতৃত্বে চিরভাস্বর একজন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ব্যারিস্টার রাজ্জাকের ক্ষমা চাওয়াতে সন্তুষ্ট নয়, আশাবাদী ড. কামাল! দলে প্রভাব বাড়াতে উপজেলা নির্বাচনে বিদ্রোহীদের উসকে দিচ্ছেন বিএনপি নেতারা প্রধানমন্ত্রী ফেলোশিপ ঘোষণা: আবেদনকারীর পাবেন ৬০ লাখ থেকে ২ কোটি বঙ্গবন্ধু ও ভাষা আন্দোলন অশ্লীল ও নোংরা ছবিতে আসক্তি থেকে মুক্তির কিছু উপায় ময়মনসিংহে শ্যালো ইঞ্জিন বিস্ফোরণে কৃষক নিহত
রাজশাহী নগরীর তালাইমারী ক্যাম্প বিজিবি বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ

রাজশাহী নগরীর তালাইমারী ক্যাম্প বিজিবি বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ

নিজেস্ব প্রতিবেদকরাজশাহীতে বিজিবির বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ২৫ বোতল ফেন্সিডিল ধরে ১৫ বোতল ফেন্সিডিলের মামলা দিয়েছে নগরীর তালাইমারী ক্যাম্পের বিজিবি। সেইসাথে ওই মামলায় আসামীর নাম না দিয়ে পরিত্যাক্ত ফেন্সিডিল দেখানো হয় বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গত সোমবার দুপুর আড়াইটার দিকে নগরীর মতিহার থানাধীন ডাসমারী এলাকায় নাজিমের ছেলে মাদক ডিলার ও একাধিক মাদক মামলার আসামী জামালের বাড়িতে তল্লাশী চালায় তালাইমারী ক্যাম্পের বিজিবি সদস্যরা।

এ সময় তার বাড়ি থেকে ২৫ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করেন তারা।

ওই এলাকার জনৈক আজাদ নামের এক যুবক জানায়, পালা ও নিজাম নামের দুই যুবক বিজিবির নিকট থেকে একটি ফেন্সিডিল নিয়ে খায় এবং জামালের নামে মামলা হবেনা মর্মে ২০ হাজার টাকায় তা আপোষ মিমাংসা করে।

সে সময় নগদ ১০ হাজার টাকা দেয়া হয় বাঁকি টাকা দেয়ার সময় নেয় তারা।

এ বিষয়ে মঙ্গলবার বিকেল ৫টার দিকে তালাইমারী ক্যাম্পের সরকারী নম্বারে ফোন দিলে হাবিলদার খলিলুর রহমান রিসিভ করেন, তার নিকট আটককৃত ফেন্সিডিলের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা জামালের বাড়ির পেছনে ফেন্সিডিল পেয়েছি তাই পরিত্যক্ত মামলা দিয়েছি।

বোতলের সংখ্যা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি তখন ছিলাম না আমায় পরে ফোন দেন। এরপর ১০/১৫ মিনিট পরে ফোন দিলে হাবিলদার ফোন ধরে অসংলগ্ন কথা বলে ক্যাম্প কমান্ডারকে ফোন ধরিয়ে দেন। ক্যাম্প-কমান্ডার মজিবুর রহমান বলেন, আমরা ১৫ বোতল ফেন্সিডিল জামালের বাড়ির পেছনে পেয়েছি। এ বিষয়ে পরিত্যক্ত মামলা দিয়েছি।

নগদ ১০ হাজার টাকা ও ২৫ বোতল ফেন্সিডিলের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মানুষ আপনাকে মিথ্যা তথ্য দিয়েছে। আগামীকাল (বুধবার) ক্যাম্পে আসুন বসে চা খেতে খেতে আলাপ করবো। সত্য মিথ্যা যাইহোক, এ ঘটনার তদন্ত প্রয়োজন বলে মনে করছেন স্থানীয়রা। জামালের মতো পেশাদার মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে যদি প্রশাসনের আপোষ হয় তাহলে মাদক নিমূল হবে কি ভাবে? এ প্রশ্নই ঘুরপাক খাচ্ছে জনমনে।

রাজশাহীর সময় ডট কম ২১ নভেম্বর, ২০১৮





© All rights reserved © 2018 rajshahirsomoy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com