শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮, ০১:৩৩ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
পবা-মোহনপুর-রাজশাহী ৩ আসনের নৌকার মাঝি আয়েনের পক্ষে কাটাখালীতে নির্বাচনী প্রচারনায় পৌর মেয়র রাজশাহী নগরীতে ইয়াবাসহ আটক-১ গর্বের সেনাবাহিনীই কেন তাদের লক্ষ্যবস্তু! আওয়ামী লীগের আছে উন্নয়ন, বিএনপি’র প্রচারণায় ব্যর্থতা নির্বাচনে ভোট চাইতে গ্রামীণফোনের সাথে চুক্তি করল বিএনপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে চূড়ান্ত বৈঠকের প্রস্তুতি নিচ্ছে বিএনপি তথা জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নগরীতে কিন্ডার গার্টেন এর উদ্দ্যেগে বৃত্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত নগরীতে নৌকার পক্ষে ২৬ নং ওয়ার্ড (পূর্ব) আ’লীগ ও ওয়ার্কার্স পার্টির যৌথ প্রচার মিছিল নগরীর ২৯ নং ওয়ার্ড জামায়াতের সাবেক আমীর গিয়াস গ্রেফতার রাজশাহীতে ট্রাক-ব্যাটারিচালিত ভ্যানের সংঘর্ষে ২জন নারী নিহত
রাজশাহী নগরীর তালাইমারী ক্যাম্প বিজিবি বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ

রাজশাহী নগরীর তালাইমারী ক্যাম্প বিজিবি বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ

নিজেস্ব প্রতিবেদকরাজশাহীতে বিজিবির বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ২৫ বোতল ফেন্সিডিল ধরে ১৫ বোতল ফেন্সিডিলের মামলা দিয়েছে নগরীর তালাইমারী ক্যাম্পের বিজিবি। সেইসাথে ওই মামলায় আসামীর নাম না দিয়ে পরিত্যাক্ত ফেন্সিডিল দেখানো হয় বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গত সোমবার দুপুর আড়াইটার দিকে নগরীর মতিহার থানাধীন ডাসমারী এলাকায় নাজিমের ছেলে মাদক ডিলার ও একাধিক মাদক মামলার আসামী জামালের বাড়িতে তল্লাশী চালায় তালাইমারী ক্যাম্পের বিজিবি সদস্যরা।

এ সময় তার বাড়ি থেকে ২৫ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করেন তারা।

ওই এলাকার জনৈক আজাদ নামের এক যুবক জানায়, পালা ও নিজাম নামের দুই যুবক বিজিবির নিকট থেকে একটি ফেন্সিডিল নিয়ে খায় এবং জামালের নামে মামলা হবেনা মর্মে ২০ হাজার টাকায় তা আপোষ মিমাংসা করে।

সে সময় নগদ ১০ হাজার টাকা দেয়া হয় বাঁকি টাকা দেয়ার সময় নেয় তারা।

এ বিষয়ে মঙ্গলবার বিকেল ৫টার দিকে তালাইমারী ক্যাম্পের সরকারী নম্বারে ফোন দিলে হাবিলদার খলিলুর রহমান রিসিভ করেন, তার নিকট আটককৃত ফেন্সিডিলের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা জামালের বাড়ির পেছনে ফেন্সিডিল পেয়েছি তাই পরিত্যক্ত মামলা দিয়েছি।

বোতলের সংখ্যা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি তখন ছিলাম না আমায় পরে ফোন দেন। এরপর ১০/১৫ মিনিট পরে ফোন দিলে হাবিলদার ফোন ধরে অসংলগ্ন কথা বলে ক্যাম্প কমান্ডারকে ফোন ধরিয়ে দেন। ক্যাম্প-কমান্ডার মজিবুর রহমান বলেন, আমরা ১৫ বোতল ফেন্সিডিল জামালের বাড়ির পেছনে পেয়েছি। এ বিষয়ে পরিত্যক্ত মামলা দিয়েছি।

নগদ ১০ হাজার টাকা ও ২৫ বোতল ফেন্সিডিলের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মানুষ আপনাকে মিথ্যা তথ্য দিয়েছে। আগামীকাল (বুধবার) ক্যাম্পে আসুন বসে চা খেতে খেতে আলাপ করবো। সত্য মিথ্যা যাইহোক, এ ঘটনার তদন্ত প্রয়োজন বলে মনে করছেন স্থানীয়রা। জামালের মতো পেশাদার মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে যদি প্রশাসনের আপোষ হয় তাহলে মাদক নিমূল হবে কি ভাবে? এ প্রশ্নই ঘুরপাক খাচ্ছে জনমনে।

রাজশাহীর সময় ডট কম ২১ নভেম্বর, ২০১৮





© All rights reserved © 2018 rajshahirsomoy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com