বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮, ০৬:৪৯ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
খালেদাকে তুরুপের তাস হিসেবে ব্যবহার করছে বিএনপি

খালেদাকে তুরুপের তাস হিসেবে ব্যবহার করছে বিএনপি

রাজশাহীর সময় ডেস্কএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নিজেদের অস্তিত্ব রক্ষা করতে দুর্নীতির দায়ে দণ্ডপ্রাপ্ত বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়াকে তুরুপের তাস হিসেবে ব্যবহার করতে চায় বিএনপি। বেগম জিয়াকে ব্যবহার করে বিএনপি নেতা তারেক রহমানের পরামর্শে নির্বাচনে সরকারের আশীর্বাদ নিয়ে সুবিধাজনক অবস্থান তথা সংসদে বিরোধী দলের জায়গা করে নিতে কাজ করছেন মির্জা ফখরুলরা। বিএনপির নয়াপল্টন পার্টি অফিস সূত্রের খবরে এর সত্যতা পাওয়া গেছে। এদিকে খালেদা জিয়াকে তুরুপের তাস হিসেবে ব্যবহার করার জন্য তারেক রহমান ও বিএনপি নেতাদের সমালোচনা করেছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষক অধ্যাপক এ আরাফাত।

সূত্র জানায়, ঐক্যফ্রন্টের ব্যানারে সরকারের সঙ্গে প্রথম দফা সংলাপে খালেদা জিয়ার মুক্তির ব্যবস্থা করতে ব্যর্থ হয় বিএনপি। নির্বাচনের পূর্বে বিএনপির জন্য খালেদা জিয়ার মুক্তি খুব জরুরি। কারণ তৃণমূল বিএনপির নেতা-কর্মীরা খালেদা জিয়াকে বিএনপির সবকিছু মনে করেন। কিন্তু বিএনপি আন্দোলন-সংগ্রাম করে বেগম জিয়ার মুক্তির ব্যবস্থা করতে কূল হারিয়ে ফেলায় তারেক রহমান বিষয়টি নিয়ে বেশ চিন্তিত এবং শঙ্কিত। তাই নির্বাচনের পূর্বে খালেদা জিয়ার মুক্তির ব্যবস্থা করতে না পারলেও অন্তত তাকে নিয়ে সরকারের সঙ্গে দর-কষাকষি করে নির্বাচনে বিএনপির অংশগ্রহণ নিশ্চিত করে নির্বাচনকে গ্রহণযোগ্য করার জন্য ৫ নভেম্বর রাতে রিজভী আহমেদকে ফোন করেন তারেক। এসময় রিজভী আহমেদের পাশে উপস্থিত ছিলেন ধানমন্ডি থানা বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক বকুল মজুমদার।

তার বরাতে জানা যায়, তারেক রহমান খালেদা জিয়ার মুক্তির চেয়ে নির্বাচনে বিএনপির অংশগ্রহণ করাকে বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছেন। নির্বাচনের পূর্বে সরকারকে ম্যানেজ করতে পারলে সেই সুবাদে জাতীয় সংসদে ফিরতে পারবে বিএনপি। শুধু তাই নয়, এর ফলে জাতীয় সংসদে বিএনপি বিরোধী দল হিসেবে মর্যাদা পাবে। সংসদে থাকতে পারলে অন্তত সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে তারেক রহমানের সাজা ও ফিরে আসার ব্যাপারে আলোচনা করতে পারবে বিএনপি। তাই নির্বাচনের পূর্বে খালেদা জিয়াকে বিএনপির জন্য তুরুপের তাস হিসেবে ব্যবহার করতে রিজভী আহমেদকে নির্দেশ দেন তারেক রহমান।

তারেক রহমানের মতে, খালেদা জিয়া দীর্ঘ সময় কারান্তরীণ থাকলেও দলে বিশেষ কোন প্রভাব পড়েনি। বরং তা বিএনপির জন্য শক্তি স্বরূপ হয়ে আছে। সুতরাং, নির্বাচনের পূর্বে খালেদা জিয়াকে ব্যবহার করে বিএনপিকে অন্তত সরকারের রোষানল থেকে বাঁচাতে রিজভীকে নির্দেশ দেন তারেক। প্রয়োজনে বেগম জিয়াকে জেলে রেখেই বিএনপি নির্বাচনে যাবে। তারেক রহমানের মতে, সরকারের যাবতীয় ক্ষোভ খালেদা জিয়ার উপর, বিএনপির উপর না।

খালেদা জিয়ার কারামুক্তির সব পথ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় তাকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে বিএনপি নির্বাচনে ফেরার চেষ্টা করছে বলে মন্তব্য করেছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষক অধ্যাপক এ আরাফাত। তিনি বলেন, এটি খালেদা জিয়ার জন্য দুর্ভাগ্য বলা চলে। জেলে থাকায় খোদ দলীয় নেতা-কর্মীদের কাছে কদর কমে গিয়েছে তার। শুনেছি, তারেক রহমান খালেদা জিয়ার সাজার বিনিময়ে সরকারের সঙ্গে সমঝোতা করার চেষ্টা করছেন। বিষয়টি দুঃখজনক। খালেদা জিয়া নিজেই দুর্নীতি করে সাজা খাটছেন। অন্যদিকে তারেক রহমান তার সাজা বিএনপি নেত্রীর ঘাড়ে চাপাতে চাচ্ছেন। সেই অর্থে খালেদা জিয়ার সাজা দ্বিগুণ বৃদ্ধি পেলো। এই রাজনীতি ইতিহাসের একটি বদনাম হয়ে থাকবে বলে আমি মনে করি।সূত্র: বাংলা নিউজ পোস্ট

রাজশাহীর সময় ডট কম ০৮ নভেম্বর, ২০১৮





© All rights reserved © 2018 rajshahirsomoy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com