শুক্রবার, ১৫ নভেম্বর ২০১৯, ০৩:৩৭ অপরাহ্ন

কৃষকের মেয়ে তানিয়া মেডিকেলে সুযোগ পেয়েও ভর্তি নিয়ে দুশ্চিন্তায়

কৃষকের মেয়ে তানিয়া মেডিকেলে সুযোগ পেয়েও ভর্তি নিয়ে দুশ্চিন্তায়

কৃষকের মেয়ে তানিয়া মেডিকেলে সুযোগ পেয়েও ভর্তি নিয়ে দুশ্চিন্তায়
কৃষকের মেয়ে তানিয়া মেডিকেলে সুযোগ পেয়েও ভর্তি নিয়ে দুশ্চিন্তায়

অনিক মাহমুদ, বাগাতিপাড়া প্রতিনিধি: তানিয়া খাতুনের জন্ম দরিদ্র কৃষক পরিবারে। দুই ভাই-দুই বোনের মধ্যে সবার বড় তিনি।

 দারিদ্রকে জয় করে তানিয়া এবার এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষায় পটুয়াখালি সরকারি মেডিকেল কলেজে ভর্তির সুযোগ পেয়েছেন। তিনি নাটোরের বাগাতিপাড়ার সদর ইউনিয়নের কোয়ালীপাড়া গ্রামের আবু তালেবের মেয়ে।

একদিকে মফস্বল গ্রাম থেকে মেডিকেলে ভর্তির সুযোগ পাওয়ায় পরিবারে যেমন বইছে আনন্দের বন্যা, অন্যদিকে ভর্তি হওয়া নিয়ে অনিশ্চয়তায় পরিবারে দেখা দিয়েছে দুঃশ্চিন্তা।

জানা গেছে, সামান্য জমিতে আবাদ করে কোন মতে সংসার চালান তানিয়ার বাবা আবু তালেব। বড় দুই মেয়ে তানিয়া-তিশা এক সাথে পড়া-লেখা শুরু করে ছোট থেকেই ভাল ফলাফল করতো। সেই থেকে মেয়েদের লেখা-পড়ার প্রতি বাবার বিশেষ মনোযোগ বাড়ে। উপজেলার তমালতলা আদর্শ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসিতে দু’জনেই জিপিএ-৫ পায়।

এরপর নাটোর শহরের সরকারি রাণী ভবানী কলেজ থেকে তানিয়া জিপিএ ৫ এবং তিশা জিপিএ ৪ দশমিক ৬৭ অর্জন করে। তানিয়া মেডিকেলে ভর্তির সুযোগ পেয়েছেন আর বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির জন্যে লড়ে যাচ্ছেন তিশা খাতুন। অজো-পাড়া গাঁ থেকে তানিয়ার এমন সাফল্যে গ্রামবাসিও খুশি। কিন্তু এতদিন খরচ চালিয়ে এলেও কৃষক আবু তালেব দুই মেয়ের আগামী দিনের খরচগুলো কিভাবে চালাবেন তা নিয়ে দুশ্চিন্তায় পড়েছেন। তানিয়ার ভর্তির টাকা জোগাড় করতে আয়ের সম্বল সামান্য জমিও লিজ দিয়েছেন।

কিন্তু তাতেও পুরোপুরি জোগাড় হয়নি। বাবা আবু তালেব জানান, তিশার খরচের পাশাপাশি তানিয়ার মেডিকেলের খরচ চালানোর সঙ্গতি তার নেই। স্কুল-কলেজে শিক্ষকরা দুই মেয়ের মেধার দিকে চেয়ে আর্থিক সংকটের কারনে প্রাইভেট পড়তে কোন টাকা-পয়সা নিতেন না। মেধাবী তানিয়া বলেন, তার এ সাফল্যে তিনি মা-বাবা-মামা আব্দুস সালামের পর স্কুল-কলেজের শিক্ষকদের প্রতি কৃতজ্ঞ। তাদের সহযোগিতা আর উৎসাহে সাফল্য অর্জন সম্ভব হয়েছে। মেডিকেলে ভর্তি হয়ে ভাল মানের চিকিৎসক হয়ে দরিদ্র মা-বাবার মুখ উজ্জ্বল করতে চান।

রাজশাহীর সময় ডট কম –২১  অক্টোবর ২০১৯





© All rights reserved © 2019 rajshahirsomoy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com