বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ০৯:২০ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বিরাট সংকটের মুখে ভারতীয় ব্যাঙ্কগুলি, সতর্ক করলেন নোবেলজয়ী অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় ভারতে বাবার চেয়ে বেশি বয়সের লোকের কাছে ৫০ হাজার টাকায় বিক্রি নাবালিকাকে, পথের কুকুরদের পেট ভরে মাংস ভাত খাইয়ে জন্মদিন পালন যুবকের রাষ্ট্র শব্দের অর্থ খুঁজছে যোগাযোগ হারানো কাশ্মীর মায়ানমারকে আরও ৫০ হাজার রোহিঙ্গার তালিকা দিল বাংলাদেশ স্ত্রীকে চুম্বনের সময় আটকে গিয়েছিল জিভ, তাই কেটে ফেলতে হয়েছে গয়না বিক্রি করতে চাপ, শ্বশুরবাড়ির মারধরে হাসপাতালে গৃহবধূ বলিউডে যৌন হেনস্তা নিয়ে বিস্ফোরক কৃতী শ্যানন ধর্ষণের বিচার চাওয়ায় পানি-বিদ্যুৎ লাইন কেটে দিল আসামিরা ৪৬ লাখ টাকার রাস্তায় হাত দিলেই উঠে যাচ্ছে কার্পেটিং
সরকারি চাকরির আবেদন করেছেন সানি লিওন

সরকারি চাকরির আবেদন করেছেন সানি লিওন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : সরকারি চাকরির নিয়োগে ভয়াবহ দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ স্বাস্থ্য অধিদফতেরর বিরুদ্ধে। পশ্চিমবঙ্গ স্বাস্থ্য নিয়োগ বোর্ডের ফেসিলিটি ম্যানেজারের চাকরিতে সম্ভাব্য প্রার্থী বাছাই নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। চূড়ান্ত প্যানেলে খালি চোখেই ধরা পড়ছে একাধিক ভুল। এমনকি প্যানেলে নাম রয়েছে সানি লিওনির।

তালিকায় প্রথম স্থান থাকা সম্ভাব্য প্রার্থীর নাম ‘হ্যালো’ মারডি। আর বাবার নাম ‘হাই’ মারডি। উচ্চমাধ্যমিকে প্রাপ্ত নম্বর ৯৭.৮০ শতাংশ। স্নাতকস্তরে ৯৬.২২%। স্নাতকস্তরে এমন নম্বর দেখে অনেকেরই চক্ষু চড়কগাছ।

দ্বিতীয় স্থানে থাকা সম্ভাব্য প্রার্থীর নাম পায়েল ঘোষ মণ্ডল। বাবার নামও একই। বাবা-মেয়ের একই নাম! প্রাপ্ত নম্বর উচ্চমাধ্যমিকে ৯৫.৬০ শতাংশ। স্নাতকস্তরে ৯৮%।

চতুর্থস্থানে থাকা সম্ভাব্য পরীক্ষার্থীর নাম সুদামা। বাবার নাম কৃষ্ণ। তো সুদামা উচ্চমাধ্যমিকে পেয়েছে ৯৯.৫০ শতাংশ। আর স্নাতকস্তরে ৮৮ শতাংশ।

পদবী নেই এমন প্রার্থী আরও একজন রয়েছেন। ২১ তম স্থানে সম্ভাব্য প্রার্থীর নাম সানি। তাঁর বাবার নাম অঙ্কিত। পদবী নেই।

আবার বাবা-ছেলের আলাদা পদবীও রয়েছে। অষ্টম স্থানে থাকা প্রার্থীর নাম দীপক রায়। বাবার নাম দীপক সেন। বাবা-ছেলের নাম এক, কিন্তু পদবী আলাদা। মহিলা হলে তাও বোঝা যেত বিয়ের পর পদবী পরিবর্তন হয়েছে।

এতদূর এসে যদি চমকে যান! তাহলে আরও বাকি। এসটি প্রার্থীদের সম্ভাব্য তালিকায় তো নাম উঠে গিয়েছে সানি লিওনির। তাঁর বাবার নাম দিলীপ সানি। জি নিউজ।

ফেসিলিটি ম্যানেজার পদে চাকরির জন্য আবেদন চেয়ে পাঠিয়েছিল পশ্চিমবঙ্গ স্বাস্থ্য নিয়োগ বোর্ড। শূন্য পদের সংখ্যা ৮১৯। অসংরক্ষিত পদের সংখ্যা ৪২৪। অস্থায়ী ভিত্তিতে এখন নেওয়া হলেও ভবিষ্যতে স্থায়ী করা হবে।

কোনও পরীক্ষার ব্যবস্থা ছিল না। উচ্চমাধ্যমিক ও স্নাতকস্তরে প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে নিয়োগ করা হবে। অনলাইনে আবেদন শুরু হয়েছিল চলতি বছরের ১৪ জানুয়ারি। আবেদনের সময়সীমা শেষ হয় জানুয়ারির ২৫ তারিখে।সাধারণ প্রার্থীদের আবেদন করতে দিতে হয়েছিল ১৬০ টাকা। তপশিলী জাতি, উপজাতিরা ছাড় পেয়েছেন।

প্রাপ্ত নম্বরের ভিত্তিতে নিয়োগের যে তালিকা তৈরি হয়েছে, তা নিয়েই শুরু হয়েছে বিতর্ক। ওই তালিকাতেই গরমিল রয়েছে বলে উঠছে অভিযোগ। সম্ভাব্য প্রার্থী তালিকায় নাম থাকা ব্যক্তিদের মার্কশিট আনতে বলা হয়েছে।

রাজশাহীর সময় ডট কম ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯





© All rights reserved © 2019 rajshahirsomoy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com