সোমবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০২:৫০ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
কেরানীগঞ্জে ‍১২ বছরের শিশু অন্তঃসত্ত্বা, খালুর ধর্ষণে ঘুমিয়ে হাঁটেন ইলিয়ানা, ভক্তরা বলছেন নায়িকাকে ভূতে ধরেছে কাশ্মীর নিয়ে পরমাণু যুদ্ধের হুঁশিয়ারি ইমরানের ! ৩০ লাখ ৫০ হাজর টাকাসহ হুন্ডি ব্যবসায়ী আটক রণবীর কাপুর নয়, রণবীর সিংয়ের সঙ্গেই দেখা যাবে আলিয়াকে! পুলিশকে জনগণের মৌলিক অধিকার, মানবাধিকার ও আইনের শাসনকে গুরুত্ব দিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে রাব্বানীর ফোনালাপে তোলপাড় বাংলাদেশকে হারিয়ে টি-টোয়েন্টিতে আফগানদের নতুন ইতিহাস জনগণের মনে পুলিশ সম্পর্কে যেন অমূলক ভীতি না থাকে” প্রধানমন্ত্রী বাঘায় ৪ ইউপি নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমাদানকারি সকল প্রার্থীর মনোনয়ন বৈধ
১৭টি মাদক মামলার আসামীকে হেরোইনসহ আটক করে মামলা দেওয়ায় টিএসআইয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ

১৭টি মাদক মামলার আসামীকে হেরোইনসহ আটক করে মামলা দেওয়ায় টিএসআইয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক : ১৭টি মামক মামলার আসামীকে হেরোইনসহ আটক করে মামলা দেওয়ায় রাজশাহী নগরীর বোসপাড়া ফাঁড়ি ইনচাজের্র বিরুদ্ধে আরএমপি কমিশনারের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন সুফিয়া বেওয়া (৭০) নামের অভিযুক্তর মা। তিনি নিজেরও মাদক মামলার আসামী। আর পুলিশকে হয়রানী করতেই তার এই রকম একটি উদ্যোগ বলে জানা গেছে।

জানা যায়, গত (৪ সেপ্টেম্বর) রাত্রী ১১ টার দিকে মফি নামের এক মাদক ব্যবসায়ীকে রানীনগর হাদীরমোড় যাত্রী ছাউনির সামনে থেকে ৬০ গ্রাম হেরোইনসহ আটক করেন, বোসপাড়া ফাঁড়ির ইনর্চাজ টিএসআই মনির ও সঙ্গীয় ফোর্স। পরে তার নামে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করে কোর্টের সোপর্দ করা হয়।

এ নিয়ে আটককৃত মফি’র “মা” সুফিয়া বেওয়া বেকায়দায় ফেলতে টিএসআই মনিরের বিরুদ্ধে আরএমপি পুলিশ কমিশনারের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগে তিনি উল্লেখ করেন, ঘটনার দিন তার ছেলে মফির কাছে পুলিশ কিছু না পেয়েও ধরে নিয়ে যায়। পরে তার ছেলেকে বোসপাড়া পুলিশ ফাঁড়িতে ছাড়াতে গেলে ৩০ হাজার টাকা দাবি করেন, ফাঁড়ি ইনচার্জ টিএসআই মনির। পরে ওই নারী ১৯ হাজার টাকা যোগাড় করে দেওয়ার পরও তার ছেলেকে ৬০ গ্রাম হেরোই দিয়ে কোর্টে চালান দেয় পুলিশ।

এ বিষয়ে জানতে এসআই মনিরের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আটককৃত মোঃ শফিকুল ইসলাম ওরফে শফি ওরফে মফি (৩৭), পিতা: সাইফুল ইসলাম ওরফে সাইমুন। সে নিজ এলাকার একজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। তার বিরুদ্ধে ১৪টি হেরোইনের মামলা ও ৩টি ইয়াবার মামলা মোট -১৭টি মামলা রয়েছে বোয়ালিয়া মডেল থানায়। অভিযোগকারী মফি’র “মা” নিজেও একটি মাদক মামলার আসামী। শুধু তাই নয় তাদের পুরো পরিবার মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত। আর টাকা সংক্লান্ত বিষয়ে তাদের সাথে আমার কোন আলাপ-চারিতা হয় নাই।

এ নিয়ে ওই এলাকার একাধিক স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, মফি একজন চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী এতে কোন সন্দেহ নাই। তাছাড়া তাকে একাধিকবার মাদকসহ পুলিশ আটক করে নিয়ে যেতেও দেখা গেছে। তারা আরো বলেন, পুলিশ তাদের নামে মিথ্যা মামলা দেবে কেন ? মাদকের ব্যবসাই তাদের একমাত্র পেশা। আর মাদক পেয়েছে বলেই পুলিশ চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী মফিকে মাদক মামলা দিয়ে জেলে পাঠিয়েছে।

আরএমপি সূত্রে জানা যায়, রাজশাহী নগরীর বোসপাড়া ফাঁড়ি ইনচার্জ হিসেবে যোগদান করার পর গত ১১মাসে টিএসআই মনির মাদকের বিরুদ্ধে অভিযানে শ্রেষ্ট অফিসার হিসেবে তাকে (নয়) ৯বার পুরুস্কৃত, এবং তার সনদ প্রদান করেন, আরএমপি পুলিশ কমিশনার।

রাজশাহীর সময় ডট কম -০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯





© All rights reserved © 2018 rajshahirsomoy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com