মঙ্গলবার, ২৩ Jul ২০১৯, ১০:১৬ অপরাহ্ন

আইপিএল ফাইনালে হাঁটু দিয়ে রক্ত ঝরলেও ব্যাটিং চালিয়ে যান ওয়াটসন

আইপিএল ফাইনালে হাঁটু দিয়ে রক্ত ঝরলেও ব্যাটিং চালিয়ে যান ওয়াটসন

ক্রীড়া ডেস্ক : আইপিএল ফাইনালের ৩৬ ঘন্টা কেটে গিয়েছে ৷ রুদ্ধশ্বাস ফাইনালের হাইভোল্টেজ ড্রামার দিন এক ঘটনা ক্রিকেট ভক্তদের নজর এড়িয়ে গিয়েছিল ৷ ম্যাচের পরদিন সেই ঘটনায় আলো ফেললেন হলুদ আর্মির অন্যতম সিনিয়র সদস্য হরভজন সিং৷

ম্যাচের দিন চেন্নাই ওপেনার শেন ওয়াটসনের ৮০ রানের দুরন্ত ইনিংস তো সবাই দেখেছেন, কিন্তু কজনই বা খেয়াল রেখেছিলেন, বাইশ গজে রক্তাক্ত হয়েও ব্যাট ছাড়েননি ৩৭ এর ওয়াটসন ৷ মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে ফাইনাল ডে’তে ফিল্ডিংয়ের সময় শরীর ছুঁড়ে বল বাঁচাতে গিয়ে বাঁ-হাঁটুতে গুরুতর চোট পান অজি ক্রিকেটার৷ ব্যাটিং করতে নামার আগে সেই চোট নিয়ে টিম ম্যানেজমেন্টকে অবশ্য ফাইনালের রাতে কিছুই জানাননি অজি ওপেনার ওয়াটসন৷ হাঁটুতে চোটের জায়গায় ৬টি সেলাই পড়লেও, সেই যন্ত্রণা নিয়েই ব্যাট করে গিয়েছেন অজি ক্রিকেটার৷

হাঁটু দিয়ে রক্ত ঝরা শুরু করলেও ব্যাট হাতে চেন্নাইয়কে চ্যাম্পিয়ন করতে বদ্ধপরিকর ছিলেন ওয়াটসন৷ শেষ পর্যন্ত ম্যাচের শেষ ওভারে জাদেজার সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝিতে ৮০ রানের(৫৯ বল) মাথায় রান আউট হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান ধোনির বিস্বস্ত ওপেনার৷ ছবিতে ধরা পড়েছে হাঁটু দিয়ে রক্তক্ষরণ বিপদজ্জনক অবস্থায় পৌঁছলেও ব্যাটিং ছাড়েননি অজি ক্রিকেটার৷ কোনও ধরনে শুশ্রূষা না নিয়েই যন্ত্রণা সহ্য করেই দাঁতে দাঁত চেপে পরের পর বল খেলে গিয়েছিলেন ওয়াটসন৷ অজি ক্রিকেটারের ইনিংস সাজানো ছিল ৮টি চার ও ৪টি ছয় দিয়ে ৷

ওপেনার ওয়াটসন ফিরতে অবশ্য শেষ বলে আর ম্যাচ বার করতে পারেনি চেন্নাই৷ শেষ বলে মুম্বইয়ের বিরুদ্ধে চেন্নাইয়ের প্রয়োজন ছিল ২ রান৷ সেখানেই শেষ বলে মালিঙ্গার সামনে উইকেট দিয়ে আসেন শার্দুল ঠাকুর৷ এক রানে ম্যাচ হারে ধোনি অ্যান্ড কোম্পানি৷ চেন্নাইকে হারিয়ে চতুর্থবারের জন্য চ্যাম্পিয়ন হয় মুম্বই ইন্ডিয়ান্স৷

ম্যাচ হারলেও চেন্নাইয়ের তারকা ওপেনার ওয়াটসনের লড়াইকে কুর্ণিশ জানিয়েছেন দলের সতীর্থ হরভজন সিং৷ সোশ্যাল মিডিয়ায় ওয়াটসনের হাঁটু দিয়ে রক্তক্ষরণের ছবি পোস্ট করে ভাজ্জি লিখেছেন, ‘ছবিতে ওয়াটসনের হাঁটর দিকে লক্ষ্য করুণ, রক্ত ঝরিয়ে ব্যাটিং করেছেন৷ ব্যাট করার আগে ছ’টি সেলাই পড়েছে৷ ওয়াটসনের লড়াকু মনোভাব দেখে সত্যিই কুর্ণিশ জানাই৷

রাজশাহীর সময় ডট কম১৪ মে ২০১৯





© All rights reserved © 2018 rajshahirsomoy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com