শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২০, ০৭:০৭ অপরাহ্ন

ব্রিজের অভাবে ঘুরতে হয় ২৫ কিলোমিটার রাস্তা!

ব্রিজের অভাবে ঘুরতে হয় ২৫ কিলোমিটার রাস্তা!

রাজশাহীর সময় ডেস্ক : মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার পৌরসভার ১ নম্বর ওর্য়াডের করিমপুরা খেয়াঘাটে ধলাই নদীর ওপর দীর্ঘ ৪৫ বছরেও সেতু নির্মাণ করা হয়নি। অথচ এলাকাবাসী দীর্ঘদিন ধরে সেতু নির্মাণের দাবি জানিয়ে আসছে। সেতু না হওয়ায় কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়ন ও পৌরসভার ১০টি গ্রামের কয়েক হাজার মানুষ দুর্ভোগ পোহাচ্ছে।

করিমপুর-রামপুর সড়কে খেয়াঘাট নামক স্থানে ধলাই নদীতে শুধু একটি ব্রিজের অভাবে উপজেলা সদরের সঙ্গে কমলগঞ্জ ইউনিয়নের সরাসরি যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে। উপজেলা সদর থেকে কমলগঞ্জ ইউনিয়নের দূরত্ব মাত্র ৪ কিলোমিটার হলেও একটি ব্রিজের অভাবে ওই ইউনিয়নের ১০টি গ্রামের হাজার হাজার মানুষকে ২৫ কিলোমিটার পথ ঘুরে উপজেলা সদরে স্কুল, কলেজ ও হাসপাতালে যাতায়াত করতে হয়।

এলাকাবাসী জানায়, এখানে সেতু নির্মাণ এলাকাবাসীর প্রাণের দাবি। এই ঘাটের পুর্ব পাড়ে উপজেলা সদর আর পশ্চিম পাড়ে কমলগঞ্জ ইউনিয়ন। ধলাইনদীর নদীর ওপর ব্রিজ নির্মাণের জন্য ইউনিয়নবাসী দীর্ঘদিন ধরে দাবি জানিয়ে আসলেও স্বাধীনতার দীর্ঘ ৪৫ বছরেও তাদের সে দাবি পূরণ হয়নি।

সরেজমিনে দেখা গেছে, উপজেলা সদর পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডে করিমপুর খেয়াঘাট সড়কটি পৌরসভার পাকা সড়ক রয়েছে। নদীর ওপর পাশেও একটি সড়ক আছে সেটাও অর্ধেক পাকা। পূর্ব পাশে কমলগঞ্জ পৌরসভার আর পশ্চিম পাশে কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়ন অবস্থিত। কমলগঞ্জ ৫০ শষ্যা হাসপাতাল, কমলগঞ্জ সরকারি কলেজ, কমলগঞ্জ সরকারি উচ্চই বিদ্যালয় অবস্থিত। কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়নের ১০টি গ্রামবাসী  উপজেলা সদরে সহজে যাতায়াত করতে ধলাই নদীর উপর একটি বাশেঁর সাকো তৈরি করেন। প্রতিদিন এই সাঁকো ব্যবহার করে ২৫ গ্রামের হাজারো মানুষসহ শত শত স্কুল কলেজগামী শিক্ষার্থীরা ঝুঁকি নিয়ে পারাপার হয়ে থাকেন। শুধু চলাচল নয় কৃষকরা ক্ষতিগ্রস্ত হন। কষকের উৎপাদিত ফসল নিয়েও পড়ে বিপাকে। সামান্য জায়গার জন্য তারা বেশি ঠাকা ভাড়া ঘুরতে হয়। অথচ ব্রিজের নির্মাণ হলে উপজেলার সদরে দূরত্ব মাত্র ১ কিলোমিটার দাঁড়াবে।

কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়নের রামপুর, চৈতন্যগঞ্জ, কুমরাকাপন, নারায়ণপুর, বনগাঁও, উবাহাটা, গোপালনগর, করিমপুর, রামপাশাসহ ১০টি গ্রামের লোকজন উপজেলা বা জেলা সদরে যেতে হলে প্রায় ২৫ কিলোমিটার ঘুরে আসতে হয়। এলাকাবাসী দীর্ঘদিন ধরে এই ধলাই নদীর খেযাঘাট নামক স্থানে একটি ব্রিজ নির্মাণের জন্য স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের কাছে দাবি জানিয়ে আসছেন।

রামপুর গ্রামের খন্দকার আনোয়ার মাসুম বলেন, এই জায়গায় একটি ব্রিজ নির্মাণ সময়ের দাবি। দ্রুত ব্রিজ নির্মাণের দাবি জানাচ্ছি।

কৃষক আব্দুল মনাফ, আব্দুল মালিক বলেন, এ সাঁকো দিয়ে পারাপারে অনেক সময় নদীতে পড়ে মানুষজন আহত হয়।

স্থানীয় কাউন্সিলর দেওয়ান আব্দুল রহিম মুহিন বলেন, আমরা স্থানীয় এমপি ও উপজেলা প্রশাসনকে একটি ব্রিজ নির্মাণের দাবি জানিয়েছি। তবে এখনো কোনো উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়নি।

কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান বলেন, খেয়াঘাটে একটি সেতু এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি। সেতু নির্মিত হলে উপজেলা সদর সাথে সদর ইউনিয়নের যোগযোগ ব্যবস্থা উন্নতি হবে এবং মানুষের কষ্ট লাঘব হবে।

রাজশাহীর সময় ডট কম২৭ জানুয়ারি, ২০২০





© All rights reserved © 2020 rajshahirsomoy.Com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com